বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১০ পূর্বাহ্ন

আজ বজ্রকথা সংবাদপত্রের ২৮তম বর্ষপূর্তি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪৯ বার পঠিত

লুৎফর রহমান সাজু ।-সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্রের আজ জন্মদিন।১৯৯৪ সালের ৭ সেপ্টেম্বর তারিখে,এই দিনে সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্র আনুষ্ঠানিক ভাবে আত্মপ্রকাশ করেছে।
নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে বজ্রকথা আজ দীর্ঘ ২৮ বছরধরে প্রকাশিত হয়ে ২৯তম বর্ষে পদার্পন করলো। বিষয়টি আমাদের কাছে আনন্দের এবং গর্বের বিষয়তো বটেই! দীর্ঘ সময় ধরে আমি ব্যক্তিগত ভাবে বজ্রকথা সংবাদ পত্রের উপ-সম্পদক হিসেবে কাজ করার সুযোগ পেয়ে অনেকটা অহংকার  বোধ করছি আজ। কারণ মফঃস্বল শহর থেকে সীমিত সুযোগ সুবিধা নিয়ে একটি সংবাদপত্র টিকে থাকার বিষয়টিকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই।
বজ্রকথা পীরগঞ্জ উপজেলার প্রথম সংবাদপত্র। বজ্রকথা নিবন্ধিত একটি সংবাদ পত্র। এই সংবাদপেত্রর সাথে যুক্ত থেকে দেশের অনেক নাম করা সাংবাদিক হাতে খড়ি নিয়েছেন, লেখায় হাত পাঁকিয়েছেন।
বজ্রকথা শুধু গত ২৮ বছরে সংবাদপত্র প্রকাশেই করেনি। এই উপজেলার উন্নয়ন, উন্নতি সমৃদ্ধির জন্য কাজ করেছে। দেশের উন্নয়নে মতামত দিয়েছে। এছাড়াও সাহিত্য- সংস্কৃতি, সুস্থ সমাজ গড়ে তোলার জন্য সম্প্রীতির উঠোন প্রতিষ্ঠা করেছে।সাহিত্য সংষ্কৃতি বিষয়ক সংগঠন “ এফসাকল ” প্রতিষ্ঠা করেছে।
আমরা ২৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকলকে প্রাণোচ্ছল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি ।
আবারো বলছি, পশ্চাৎপদ গ্রাম বাংলার একটা উপজেলা থেকে সংবাদপত্র প্রকাশ করা ছোট বিষয় না । কতটা পরিশ্রম ,ত্যাগ প্রচেষ্টার ফসল এই সংবাদ পত্র প্রকাশ, তা সম্পাদক সুলতান আহমেদ সোনা জানেন । যে সময় সাপ্তাহিক বজ্রকথা পত্রিকা প্রকাশিত হয়েছে তখন উপজেলা শুধু কেন, অনেক জেলা শহরেও দৈনিক কিংবা সাপ্তাহিক পত্রিকা বের করার সাহস করে উঠতে পারেনি অনেকেই । এ অঞ্চলের মানুষের খবর ঢাকার দুই একটা পত্রিকার পাতায় ছাপা হলেও তা হাতে পেতে সময় লাগত দুই তিন দিন । এককথায় খবর বাসি হলে তারপর জানা যেত ।
অসংখ্য মানুষের ভালোবাসা আর সহযোগিতার ফসল এই সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্র । ২৮ বছরে অনেক গুণী ব্যক্তির জন্ম দিতে পেরেছে এই বজ্রকথা। সাহিত্য ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে অসাধারণ অবদান রাখতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্র। প্রতি বছর সাহিত্য সম্মেলন ও গুণী জন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে বজ্রকথা পরিবার। দেশীয় সংস্কৃতির বিকাশ, খেলা ধুলো, সংগীত চর্চা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সুস্থ ধারার সংস্কৃতি পালনে চেষ্টা করে যাচ্ছে বজ্রকথা পরিবার।
সব সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন তৈরি করছে এই পরিবার। এ জন্য সকলের কাছে সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্র একটি মডেল হিসেবে হৃদয়ের মধ্যে একটি নিদিষ্ট স্থান করে নিয়েছে । সাপ্তাহিক বজ্রকথা পত্রিকা উত্তরোত্তর শ্রীবৃদ্ধি ঘটে নতুন ইলেকট্রিক মিডিয়া বি কে টিভি এন্টারটেইনমেন্ট চ্যানেল চালু করায় । গণমানুষের মুখপাত্র হিসেবে অত্যন্ত সুন্দর ও সুনামের সাথে আজো প্রকাশনার ধারা অব্যাহত আছে ।
আমরা সাপ্তাহিক বজ্রকথা’র আরও সফলতা কামনা করছি এবং সবাইকে পাশে থাকার অনুরোধ রাখছি। আবারো শুভেচ্ছা অভিনন্দন জানাচ্ছি । জয় হোক সাপ্তাহিক বজ্রকথা সংবাদপত্রের ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com