শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৭:২৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
চিলমারী কল্যাণ সমিতির কমিটি গঠন পীরগঞ্জে পাটচাষীদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত   দিনাজপুর শিশু একাডেমীর চিত্রাংকনসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে নেসকো গ্রাহকদের নিয়েপিএলসির নেসকোর  গণশুনানী ফুলবাড়ী শিবনগর ইউনিয়নে বয়স্ক ও বিধবা ভাতার কার্ড এর লটারি অনুষ্ঠিত  পলাশবাড়ীতে দুই বাইকের সংঘর্ষে আহত স্বদেশ এর মৃত্যু এসএসসি পরীক্ষায় মোবাইলে  প্রশ্নপত্র ফাঁস এক শিক্ষকের কারাদন্ড রংপুরে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন “শেকড় ” এর সহয়োগীতায় বর্ণমালায় রোদ্দুর কবিতা পাঠের আসর বাংলাদেশ প্রেসক্লাব পীরগঞ্জ শাখার সম্মেলন ও কমিটি গঠন

আবারো বন্যার আশঙ্কা

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২০ জুলাই, ২০২০
  • ৪৩৫ বার পঠিত

বজ্রকথা রিপোর্ট।- পুনরায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। শনিবার পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, আগামী ২০-২১ জুলাই থেকে ৪ দিন পুনরায় ভারতে আসাম, হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলে একই ভাবে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ বিষয়ে সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, পূর্বাভাস তথ্যমতে আগামী ২০ জুলাই থেকে ৪ দিন উজানে প্রায় ৮০০ মিমি বৃষ্টিপাত হতে পারে যা দেশের নদ-নদীতে পানির চাপ বাড়াবে। তবে পানি বাড়লেও আগামী ২৬ থেকে ২৭ জুলাই হতে পদ্মার পানি অব্যাহত ভাবে হ্রাস পাওয়া শুরু করতে পারে। জুলাই মাসের শেষ বা আগস্টের প্রথম সপ্তাহে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসতে পারে। সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির আশা জানিয়ে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, পদ্মা নদীর পানি ইতিমধ্যে হ্রাস পাওয়া শুরু করেছে, ফলে আগামী আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে মধ্যাঞ্চলের জেলা গুলোতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি আশা করা যাচ্ছে। চলতি বন্যায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বড় কোন ভাঙ্গন হয় নাই। মন্ত্রণালয় এবং পানি উন্নয়ন বোর্ড স্থানীয় জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় যে কোন জরুরি পরিস্থিতি তাৎক্ষণিক ভাবে মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও জনবল নিয়ে মাঠ পর্যায়ে প্রস্তুতি আছে। প্রসঙ্গত, জুলাই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে ভারতের আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ৪ দিনে প্রায় ৯০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। ফলে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বন্যা সৃষ্টি হয় যা পদ্মা নদীর মাধ্যমে নামার সময় দেশের মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত জেলা সমূহ রাজবাড়ি, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর,শরীয়তপুর ও চাঁদপুর জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com