1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সুন্দরগঞ্জে করোনায় কর্মহীন ৪০০ পরিবারের মাঝে ঈদ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কোলাকুলি আর করমর্দন ছাড়াই রংপুরে পালিত হলো ঈদ উল আযহা পীরগঞ্জে ইউপি ভবনে তালা অত:পর সংবাদ সন্মেলন প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো উপহার কাহারোলে জয়বাংলা ভিলেজে অসহায়দের পৌছে দিলেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি রংপুরে ঈদুল আযহা কর্মসূচি গ্রহণ: প্রধান জামাত সকাল ৮টায় সুন্দরগঞ্জে করোনায় কর্মহীন ৪০০ পরিবারের মাঝে ঈদ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  রংপুরে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরও ১১ শনাক্ত ৪৭৪ বগুড়ায় পর্নোগ্রাফি আইনে দুই তরুণ গ্রেফতার দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির রংপুর মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদকের ঈদ শুভেচ্ছা

আমরা জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি কাজ করে যাব – প্রধানমন্ত্রী

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩২ বার পঠিত

বজ্রকথা ডেক্স।- ৩ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকালে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০০৮ সালের পর আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের অনেক চেষ্টা ও ষড়যন্ত্র হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের সরানোর জন্য যত বেশি নাড়াচাড়া করবে আওয়ামী লীগের শিকড় তত বেশি মাটিতে শক্ত হবে, পোক্ত হবে। এদিন তিনি গণভবন থেকে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংযুক্ত হন। গণভবন প্রান্ত থেকে সভাটি পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ। সভার শুরুতেই ১৫ আগস্ট,৩নভেম্বর, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধসহ সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে শাহাদাতবরণকারীদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
আলোচনা সভায় সূচনা বক্তব্য রাখেন দলীয় সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।এ সময় আওয়ামী লীগের অধিকাংশ কেন্দ্রীয় নেতা,সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যে যেভাবে বলতে চেষ্টা করুক না কেন, ক্ষমতায় জনগণের ভোট, জনগণের সমর্থন নিয়েই আমরা এসেছি। এটা হলো বাস্তব। যখন আমরা ২০০৮-এর পর সরকারে এসেছি তখন অনেকভাবে চেষ্টা করা হয়েছে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের। বিডিআরের ঘটনা ঘটানো হলো। হেফাজতের ঘটনা ঘটানো হলো। নানা ধরনের ঘটনা, বহু রকমের কারসাজি ঘটানোর চেষ্টা। তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র করে খুন করে ফেলা যায়, কিন্তু জনসমর্থন না থাকলে ক্ষমতায় গিয়ে কেউ ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারে না। মানুষের কল্যাণও করতে পারে না।তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ টিকে আছে শুধু জনগণের জন্য কাজ করার মধ্য দিয়ে।কারও দয়া ভিক্ষা করে নয়, কারও করুণা ভিক্ষা করে নয়। তিনি বলেন, তাই আওয়ামী লীগকে নিয়ে যত বেশি নাড়াচাড়া কিংবা ষড়যন্ত্র করা হবে, আওয়ামী লীগের জনসমর্থনের শিকড় আরও বেশি শক্তিশালী হবে, এটা সবাইকে মনে রাখতে হবে। জনগণের সমর্থন নিয়েই প্রতিবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জনগণের মঙ্গলে ও কল্যাণে কাজ করেছে, যার শুভফলও জনগণ পাচ্ছে। তিনি বলেছেন এ দেশে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। আমরা জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি, কাজ করে যাব।
নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপনকারীদের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অনেকে হয়তো ভুলে যান, ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রæয়ারির প্রহসনের নির্বাচনে শুধু ভোট চুরির অপরাধেই খালেদা জিয়াকে দেশের জনগণ অভ্যুত্থান ঘটিয়ে মাত্র দেড় মাসের মাথায় পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছিল। খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে দেশকে দুর্নীতিতে পাঁচবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করেছিল, বাংলা ভাই-জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করেছিল। ’৯১ সালেও জামায়াতের হাত ধরে ক্ষমতায় এসেছিল খালেদা জিয়া। ভোট চুরির কারণেই দেশের জনগণ ’৯৬ সালের নির্বাচনে খালেদা জিয়াকে ভোট দেয়নি। ১৫ আগস্ট ও ৩ নভেম্বর হত্যাকান্ডের সঙ্গে খুনি মোশতাক ও জিয়াউর রহমান জড়িত উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর খুনি মোশতাক অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেই প্রথমে জিয়াউর রহমানকে সেনাপ্রধান করে। এতেই স্পষ্ট হয়,এ ষড়যন্ত্রে খুনি মোশতাকের ডান হাত ছিল এই জিয়াউর রহমান।
সমালোচকদের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ দেশে দুর্নীতির বিষবৃক্ষ রোপণ এবং অবৈধ ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখতে একটি এলিট শ্রেণি তৈরি করে ঋণখেলাপি সংস্কৃতি কারা সৃষ্টি করেছিল? তিনি বলেন ১৫ আগস্ট ও ৩ নভেম্বরের হত্যাকান্ড শুধু পারিবারিক হত্যাকান্ড নয়, দেশ ও জাতিকে সম্পূর্ণ ধ্বংস ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংস করতেই ১৫ আগস্ট ও ৩ নভেম্বরের হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছিল
শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর অবৈধভাবে বেইমান মোশতাক রাষ্ট্রপতি আর জিয়াউর রহমান হচ্ছে সেনাপতি। তাদের পরিকল্পনায় এবং হুকুমে কারাগারের দরজা খুলে খুনিদের প্রবেশ করতে দেওয়া হয়, তারাই হত্যাকান্ডটা চালায়। আর ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর আমরা দেখেছি অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের খেলা। প্রধানমন্ত্রী সবাইকে সজাগ ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সন্ত্রাসী, খুনি ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্র বসে নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com