বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন

আশুগঞ্জের প্রশাসন ও মালিকদের উদ্যোগ চাতাল শিশুরা পড়ছে বিদ্যালয়ে

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৮১ বার পঠিত

বজ্রকথা ডেক্স।- আশুগঞ্জে প্রশাসন ও চাতাল মালিকদের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত শিশু দিবা যত্ন কেন্দ্র ও প্রাক- প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যেও অনগ্রসর শিশু শিক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। অল্প সময়ে বিদ্যালয় দুটি চাতাল শ্রমিক ও তাদের শিশুদের মধ্যে জাগিয়েছে আশার আলো। শিক্ষা সংশ্নিষ্টরা এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে বিদ্যালয় দুটি জাতীয় করণসহ বিদ্যমান সমস্যা নিরসনে সরকার ও সংশ্নিষ্টদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। আশুগঞ্জে ৪ শতাধিক চাতালে ৩০ হাজারের বেশি শ্রমিকের প্রাথমিক স্কুল গমনোপযোগী শিশু রয়েছে ৮ থেকে ১০ হাজার। তাদের স্কুলমুখী করার লক্ষ্যে ২০১২ সালে সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পের আওতায় চাতাল মালিকদের নিয়ে একটি বিদ্যালয় গড়ে তোলা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খানের নির্দেশনায় আশুগঞ্জের ইউএনও নাজিমুল হায়দার একটি বিদ্যালয় গড়ে তোলেন। উপজেলার সোনারামপুর ও খড়িয়ালা এলাকায় অবস্থিত প্রতিষ্ঠান দুটিতে চাতাল শ্রমিকদের ২ শতাধিক শিশু লেখাপড়া করছে। তাদের শিক্ষাদানের জন্য নিয়োজিত রয়েছেন ৪ জন শিক্ষক। চাতাল শ্রমিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্বাস সর্দার বলেন, শ্রমিকরা গরিব। তাই ইচ্ছা থাকলেও সন্তানদের পড়াতে পারেন না। এ ধরনের বিদ্যালয় নিঃসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। জেলা চাতাল মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি জিয়াউল করিম সাজু খান বলেন, চাতাল মালিক ও প্রশাসনের অনুদানে প্রতিষ্ঠান দুটি চলছে। প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় কিছু সমস্যা রয়েছে। সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে এলে এ সমস্যা সমাধান করা আরও সহজ হতো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com