1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পীরগঞ্জে গ্রাম্য সালিশে শ্লীলতাহানির ঘটনা মিমাংসা রংপুর নগরীতে যানবাহনের সাথে বেড়েছে মানুষের চলাচল খুলছে দোকানপাট রংপুরে বেড়েছে শনাক্তের হার: আরও ১৫ জনের মৃত্যু রংপুরের বদরগঞ্জে এক নারীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ বগুড়া র‌্যাবের পৃথক পৃথক অভিযানে ৮ মাদক ব্যবসায়ীসহ ১৬ জন জুয়াড়ি গ্রেফতার দৈনিক তিস্তার সম্পাদক মরহুম আলহাজ্ব মিজানুর রহমানের চল্লিশা ও দোয়া খায়ের অনুষ্ঠিত ঘোড়াঘাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু উপজেলা চেয়ারম্যানের রোগমুক্তি কামনা করে ঘোড়াঘাটে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  নবাবগঞ্জে অপসোনিন এর সেলসম্যানের ঔষধ চুরি ঘটনা ধরা পড়ায় অপসোনিনে ঔষধ বর্জন ঘোড়াঘাট উপজেলা চেয়ারম্যানের রোগমুক্তি কামনায়  বিশেষ দোয়া  অনুষ্ঠিত 

কঠিন সময় পার করছে মফঃস্বলের সংবাদপত্র গুলো

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট, ২০২০
  • ১০১ বার পঠিত

কঠিন সময় পার করছে জেলা ও উপজেলা থেকে প্রকাশিত সংবাদপত্রগুলো। করোনা এর জন্য দায়ি। করোনাভাইরাসের ধাক্কায় সব কিছু এলামেলো হয়ে গেছে। ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে সংবাপত্র প্রকাশনার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে হয়ে দাড়ায় করোনা। বন্ধ হয়ে যায় সড়ক যোগাযোগ। শহর বন্দর পড়ে লকডাউনের কবলে। বন্ধ হয়ে যায় ছাপাখানার কাজ। ফলে পত্র পত্রিকার প্রকাশনা ও বিপনন ব্যবস্থায় ধস নামে। বাধ্য হয়ে বন্ধ রাখতে হয় সংবাদপত্রের অফিস। পরিস্থিতি মেনে নিয়ে জীবন বাচাঁতে কর্মীরাদের ছেড়ে দিতে হয়। এখনো এই অবস্থা চলছে। দেশের বড় বড় সংবাদপত্রগুলো আধুনিক সুযোগ সুবিধা, মজবুত আর্থিক ভিত্তির কারনে প্রকাশনা অব্যাহত রাখতে সক্ষম হলেও,উপজেলা পর্যায়ের সংবাদপত্রগুলো মেরুদন্ড সোজা করে দাড়াতে পারছে না। অবশ্য দু’একটি সংবাদপত্র সংকটে থাকলেও দীর্ঘদিনের সুনাম নাম যশ খ্যাতি রক্ষায় অনলাইনে প্রকাশনা অব্যহত রাখার কসরত করছে। ছাব্বিশ বছরের সংবাদপত্র সাপ্তহিক বজ্রকথাও মহা সংকটে রয়েছে। সাপ্তাহিক সংবাদ পত্রগুলো ভবিষ্যতে সচল হতে পারবে কি না তা নিয়ে সন্দহ রয়েছে। কারণ মফঃস্বল থেকে সংবাদপত্র প্রকাশ করা কঠিন কাজ। আর বর্তমান সময়ে সাপ্তাহিক সংবাদ পত্রের কদর খুব একটা নাই। ডিজিটাল যুগে অনেক কিছুই হাতের মুঠোর এসে যাওয়ায়,মানুষ সহজেই খবরা খবর, প্রতি মুহুর্তে ঘটে যাওয়া ঘটনা, সাথে সাথেই জানার সুযোগ পাচ্ছেন। মোবাইল ফোন, টেলিভিশন, ফেসবুক, ইউটিউব হাতে থাকায় এখন সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক পত্র পত্রিকা,সংবাদপত্রের গুরুত্ব নেই বল্লেই চলে। আমরা দেখেছি দৈনিক সংবাদপত্রে যে সব খবর বা লেখা প্রকাশিত হচ্ছে তার হেড লাইন ছাড়া এখন পাঠক আর কিছু পড়ছেন না। কারণ পাঠক যা পড়তে চান তার সব কিছু আগেই টিভির খবর থেকে জানা হয়ে গেছে। অপর দিকে সব কিছুর ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় এবং সাপ্তাহিক সংবাদপত্রগুলোর জন্য বিজ্ঞাপন বরাদ্দ না থাকায়, সার্কুলেশ হ্রাস পাওয়ায়, লাভ তো দুরের কথা টিকে থাকাই দায় হয়ে গেছে। তাই আমরা মনে করি, সংকটাপন্ন সংবাদপত্রগুলোর ব্যাপারে সরকারের গঠনমূলক সিদ্ধান্তে আসা উচিত। এ ক্ষেত্রে আমাদের প্রস্তাবনা হচ্ছে,সংবাদপত্রগুলোকে শতভাগ ডিজিটাল সুবিধার আওতায় আনা হোক। অনুমতি বিহীন সংবাদপত্র গুলোর কার্যক্রম বন্ধ করা হোক, অনলাইন সংবাদপত্রগুলোকে দ্রুত নিয়ম মাফিক রেজিষ্ট্রেশন প্রদান করা হোক। সাপ্তাহিক,অর্ধ সাপ্তাহিক সংবাদপত্রগুলো চাইলে সেগুলোকে অনলাইলে যাবার সুযোগ দেয়া হোক। উপজেলা পর্যায়ের সংবাদপত্রগুলোকে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে স্থানীয় সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের বিজ্ঞাপন প্রকাশের সুযোগ প্রদান করা হোক। শেষ কথা সরকার যদি মফঃস্বলের সংবাদপত্রগুলোকে রক্ষা করতে চায়,তা হলে উদার মনে সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে। আমরা এদিকে মাননীয় তথ্যমন্ত্রী মহোদয়ের দৃষ্টি দেয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com