1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ফুলবাড়ী রাজারামপুর বিষ মিশিয়ে লক্ষাধিক টাকার মাছ মেরে ফেলার অভিযোগ বগুড়ায় অন্যের সম্পত্তিতে জোরপূর্বক কলা গাছ লাগিয়ে দখলের চেষ্টা কৃষিতে বাংলাদেশ স্বাবলম্বী -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি দিনাজপুরে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হারভেস্টার বিতরণ  কটিয়াদীতে বাংলাদেশ স্কাউট দিবস পালিত কিশোরগঞ্জের হাওরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ হাওরে নতুন পঁচিশ জাতের ধানের পরীক্ষামূলক আবাদ সাপাহারের তরুণ উদ্যোক্তা শিবলীর সাফল্য:  ফল রক মেলন চাষের উজ্জল সম্ভাবনা দিনাজপুর পৌরসভায় স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ জেলা পরিষদের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে সুন্দর্য বর্ধন

করোনা টেস্টে প্রতারণা : জেকেজির ডা. সাবরিনা গ্রেপ্তার

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ৩৮ বার পঠিত

বজ্রকথা রিপোর্ট : করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট ডেলিভারি দেয়া জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১২ জুলাই ২০২০ তারিখ রোববার বিকেলে তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়। এর আগে দুপুরে তাকে তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ (ডিসি) কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। জেকেজির প্রতারণার সঙ্গে ডা. সাবরিনা আরিফের সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সম্প্রতি ভুয়া করোনা রিপোর্ট তৈরির জন্য আরিফ চৌধুরীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানতে পারে, জেকেজি হেলথকেয়ার থেকে ২৭ হাজার রোগীকে করোনার টেস্টের রিপোর্ট দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১১ হাজার ৫৪০ জনের করোনার নমুনার আইইডিসিআরের মাধ্যমে সঠিক পরীক্ষা করানো হয়েছিল। বাকি ১৫ হাজার ৪৬০ জনের রিপোর্ট প্রতিষ্ঠানটির ল্যাপটপে তৈরি করা হয়। জব্দ করা ল্যাপটপে এর প্রমাণ মিলেছে। আরিফ চৌধুরী জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানান, জেকেজির ৭-৮ কর্মী ভুয়া রিপোর্ট তৈরি করেন। এমন অভিযোগের তদন্ত করতে নেমে পুলিশ প্রথমে জেকেজির সাবেক গ্রাফিক ডিজাইনার হুমায়ুন কবীর ও তার স্ত্রী জেকেজির চিফ নার্সিং অ্যাডভাইজার তানজীনা পাটোয়ারীকে গ্রেফতার করে। এরপর তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৩ জুন জেকেজির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল চৌধুরীসহ জেকেজির প্রধান উপদেষ্টা সাঈদ চৌধুরী, আইটি কর্মকর্তা বিপ্লব দাস ও অফিস সহকারী আলামিনকে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া অধিকতর তদন্তের জন্য জেকেজির পাঁচটি ল্যাপটপ, দুটি ডেস্কটপ এবং করোনার নমুনা সংগ্রহের তিন হাজার কিট জব্দ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গ্রেফতারকৃতদের দুদিনের রিমান্ডে আনে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে হুমায়ুন ও তানজীনা দাবি করেন জেকেজির সিইও আরিফুল হক তাদের এই কাজে বাধ্য করেছেন। চাকরি ছেড়ে দেয়ার পর হুমায়ুনকে জেকেজিতে আটকে রাখা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে কাজ করতে রাজি হলে তাকে ছাড়া হয়। প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, জেকেজি বিনামূল্যে নমুনা সংগ্রহের জন্য ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের পৃথক ছয়টি স্থানে ৪৪টি বুথ স্থাপন করেছিল। এসব এলাকা থেকে প্রতিদিন ৩০০ থেকে ৩৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করতো জেকেজি। শর্ত ছিল, সরকার নির্ধারিত করোনা শনাক্তকরণ ল্যাবরেটরিতে নমুনা পাঠাতে হবে। জেকেজি হেলথকেয়ার, ওভাল গ্রুপের একটি অঙ্গসংগঠন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com