1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:২৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

গাইবান্ধায় বৈরি আবহাওয়ায় আমন ধানসহ শীতকালীন সবজির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা     

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪১ বার পঠিত
ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা ।- বঙ্গোপসাগরের সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাব পড়েছে উত্তরের জেলা গাইবান্ধায়। এর ফলে মাঝারি ধরণের বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া বইছে। এমন বিরূপ আবহাওয়ার কারণে কৃষকদের রোপা আমন ধান এবং শাক-সবজিসহ বিভিন্ন ফসলাদির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
২৪ অক্টোবর শনিবার গাইবান্ধার বিভিন্ন উপজেলার কৃষকের ক্ষেতে আমন ধান ও অন্যান্য ফসলাদির ক্ষয়-ক্ষতির চিত্র দেখা গেছে।
জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে গাইবান্ধা জেলার সর্বত্র শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়ে শনিবার পর্যন্ত গুড়িগুড়ি বৃষ্টির সঙ্গে অব্যাহত রয়েছে দমকা হাওয়া। হঠাৎ করে আবহাওয়ার এমন বিরূপ আচারণে কৃষকদের রোপা আমন ধানের গাছগুলো হেলে পড়েছে পানির উপরে। এছাড়াও সম্প্রতি মাঠজুড়ে শীতকালীন শাক-সবজি বোনা হয়েছিলো। নিম্নচাপের টানা বৃষ্টিপাতের কারণে সেগুলোও ক্ষতির আশঙ্কা করছে কৃষকরা।
এদিকে, কৃষি নির্ভশীল গাইবান্ধা জেলায় গত মাসে বয়ে গেছে ভয়াবহ বন্যা। এ বন্যায় নিম্নাঞ্চলের কৃষকদের রোপা আমন ধানসহ হাজার হাজার হেক্টর ফসলাদির ক্ষতি হয়েছে। এসময় উঁচু এলাকার আমন ধানের ক্ষেতগুলো আংশিক ক্ষতি হলেও অধিকাংশ ক্ষেতের ধান ঘরে তোলার স্বপ্ন দেখছিলেন কৃষকরা। ইতোমধ্যে ওইসব আমন ক্ষেতে ধান বের হতে শুরু করছিলো। এরই মধ্যে নিম্নচাপের প্রভাবে ধান গাছগুলো হেলে পড়েছে পানির উপরে। হেলে পড়া এসব ফসল ঘরে তোলা সম্ভব নয় বলে ধারণা করছে প্রান্তিক কৃষকরা। দফায় দফায় এমন দূর্যোগের কবলে কৃষকরা অপূরণীয় ক্ষতিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে। কীভাবে ঘুরে দাঁড়াবে এমন দুশ্চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটছে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।
গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের  ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক শাহীন মন্ডল বলেন, অন্যের কাছ থেকে   ঋণ করে ১ বিঘা জমিতে আমন ধান রোপন করাসহ শাক-সবিজ চাষাবাদ করেছিলাম। ফের বৈরী আবহাওয়ায় এসব ফসলের ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।
সবজি চাষী মোঃ খোরশেদ আলম জানান, বাড়ির পাশের উঁচু জমিতে শীতকালীন সবজির চাষ করেছিলাম দুই দিনের বৃষ্টিতে জমিতে পানি জমে সব ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।
গাইবান্ধা জেলা  কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায় এবছর জেলায় ১ লাখ ২৮হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের আবাদ করা হয়েছে । এ বিষয়ে  গাইবান্ধা জেলা কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক মাসুদুর রহমান  বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কবল থেকে কৃষকরা যেন কিছু ফসলের রেহাই পায় সে বিষয়ে তাদের সার্বিক পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com