বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পার্বতীপুরে গুরুত্ব ও সচেতনতা বিষয়ক কর্মশালা পার্বতীপুরের রেলওয়ে কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানায় স্বল্প জনবল দিয়েই চলছে নির্ধারিত কার্যক্রম রাজাকাররা কোটার নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বড়পুকুরিয়ায় ১২টি গ্রাম  ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির মানববন্ধন পীরগঞ্জ সাঈদের দাফন সম্পন্ন কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

গোবিন্দগঞ্জে সাওতালদের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৬৭ বার পঠিত

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা।- বহুল আলোচিত ঘটনা গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জে সাওতাল হত্যা,অগ্নি সংযোগ,লুটপাট ভাংচুর,নির্যাতনের দাবিতে আজ ৬ নভেম্বর শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৬ নভেম্বর ২০১৬ সালে বাংঙ্গালি আদিবাসী সাওতাল সম্প্রদায়ের উপর নির্মম নির্যাতন হত্যা ও লুটপাটের ঘটনার দ্রুত বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল গোবিন্দগঞ্জ শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির ডাঃ ফিলিমন বাসকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিরাজুল ইসলাম (বাবু) আহবায়ক আদিবাসী সংহতি পরিষদ, মো¯-াফিজুর রহমান মুকুল বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টি, রেবেকা শরেন সভাপতি বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন,সহসিন রেজা সভাপতি নওগা জেলা শাখা,বুলবুল আহম্মদ, জিয়াউর রহমান জিয়া, সভাপতি রংপুর জেলা সংসদ বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, রবিনাথ সরেন,বাবুল অধিকারসহ আরোও অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তি।

সমাবেশে বক্তারা বলেন যাদের কে হত্যা করা হয়েছিল ঐ সকল হত্যা কারীদের দ্রুত বিচার আইনে বিচার কার্যকর করতে হবে এবং আমাদের জমি আমাদের ফেরত দিতে হবে। সমাবেশে ৭দফা দাবি করেন দফা ১/ গোবিন্দগঞ্জ সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম-এর রিক্যুইজিশন করা ১৮৪২.৩০ একর সম্পত্তি আদিবাসীদের ফেরত দিতে হবে। দফা ২/ আদিবাসীদের সম্পত্তি কোন সরকার/কতৃপক্ষ কতৃক রিক্যুইজিশন করা এখতিয়ার বহির্ভূত হওয়ায় এ ধরনের কার্য বাতিল ও পৃথক ভূমি কমিশন গঠন করে আদিবাসীদের সম্পত্তি ফেরত দিতে হবে।দফা ৩/ আদিবাসী সাওতাল পল্লীতে ভাংচুর,অগ্নি সংযোগ,লুটপাট এবং গুলি করে নিহত ও গুরুতর আহত করার সাথে জরিত উস্কানীদাতা ও সন্ত্রাসীদের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি এবং নিহত ও আহতদের জন্য ক্ষতি পুরন দিতে হবে। দফা ৪/ ৬ নভেম্বর ২০১৬ তারিখের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত আদিবাসী বাঙ্গালিদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। আদিবাসী -বাঙ্গালি নারী- পুরুষের উপর স্থায়ী সন্ত্রাসীদের জুলুম ও পুলিশী হয়রানী বন্ধ করতে হবে। দফা ৫/ ১৯৪৮ সালের মোতাবেক যে কার্যের জন্য (ইক্ষুচাষ) গ্রহন হয় তা না করা হলে খেসারতসহ পূর্বমালিক আদিবাসীদের ফেরতের বিধান বা¯-বায়ন করতে হবে।দফা ৬/আদিবাসী সাওতালদের বাড়িঘরে অগ্নি সংযোগকারী চিহ্নিত পুলিশ কর্মকর্তাসহ জড়িতদের বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। দফা ৭ / ২০০৪ সালে সুগার মিল বন্ধের পর প্রভাবশালীদের মাঝে লিজের নামে যে অর্থআত্মসাৎ ও দূর্নীতি হয়েছে সেই দূর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com