বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন

টানা বর্ষণে দিনাজপুর শহরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত : পানিবন্দী কয়েক’শ পরিবার

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১০২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, দিনাজপুর।- কয়েকদিনের টানা ভারী বর্ষণে দিনাজপুর শহরের উপশহরসহ মিস্ত্রিপাড়া-বাহারপাড়া প্লাবিত হয়েছে। এতে পানি বন্দী হয়ে পড়েছেন কয়েক’শ পরিবার।

টানা ভারী বৃষ্টিপাতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় দিনাজপুর শহরের ১২নং ও ৯ নং ওয়ার্ডের একাংশ পুলহাট-মিস্ত্রিপাড়া-বাহারপাড়া এলাকার কয়েক’শ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এতে বসবাসের অযোগ্য হওয়ায় বাড়ি ছেড়ে কয়েক’শ পরিবার আশ্রয় নিয়েছে স্বজনদের বাসায়। এলাকার বড় ক্যানেলের পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় জলাবদ্ধতা বেড়ে বসত বাড়িগুলো এখন হাটু পানির উপরে।

সরেজমিনে আজ শুক্রবার সকালে উপশহর, মিস্ত্রিপাড়া, বাহারপাড়া ও পুলহাট খোয়ারের পুল এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, পানি নিষ্কাষনের জন্য একটি ড্রেন মিলের ছাই আর আবর্জনা দিয়ে ভরা। আর খোয়ারের পুল সেই ছাই-আবর্জনা দিয়ে ভর্তি থাকায় ড্রেনের পানি পুলের ওপারে বের হয়ে যেতে পারছে না। তবে পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল আলম রমজান নিজেই স্থানীয়দের সাথে নিয়ে ড্রেনের ছাই-আবর্জনা অপসারণ করে পানি নিস্কাষণের ব্যবস্থা করতে দেখা গেছে।

এদিকে, রাস্তায় হাটুর উপরে পানি থাকায় উপশহর নতুন ৬নং এর বাসিন্দারা ঘর হতে রাস্তায় বের হতে পারছেন না। আর মিস্ত্রিপাড়া ও বাহারপাড়ার বাসা-বাড়িতে পানি ডুকায়, দুপুরে রান্না করতে না পেরে শুকনো খাবার খেয়ে দিনাতিপাত করছে শতাধিক পরিবার।

উপশহর নতুন ৬নং বাসিন্দা মোক্তার হোসেন, বাহারপাড়ার হাসমত আলী, মিস্ত্রিপাড়ার নুরুল ইসলামসহ অনেকেই জানান, এই পুলহাট খোয়ারের পুলে নীচের ছাইযুক্ত আবর্জনা সরিয়ে ফেললেই মিস্ত্রিপাড়া, বাহারপাড়ার পানি বের হয়ে যাবে। প্রায় ১৫ বছর ধরে বর্ষাকালে এই সমস্যার সমাধান এখন পর্যন্ত করেননি পৌর কর্র্তৃপক্ষ। পানি নিষ্কাষণে ড্রেনটির ময়লা অপসারণ করতে জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে পুলহাট, মিস্ত্রিপাড়া ও বাহারপাড়াবাসী।

দিনাজপুর পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল আলম রমজান জানান, নিজেই স্থানীয়দের সাথে নিয়ে ড্রেনের ছাই-আবর্জনা অপসারণ করে পানি নিস্কাষণের প্রাথমিক ব্যবস্থা করেছি। তবে স্থায়ীভাবে এই ছাই-আবর্জনা অপসারণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com