শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন

তথ্য আপা পীরগঞ্জে নারী উন্নয়নে কাজ করছে

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
  • ১০৩ বার পঠিত

কনক আচার্য।-“তথ্য আপা” ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য যোগায়োগ প্রযুক্তির মাধ্যমে ক্ষমতায়ন প্রকল্প। জাতীয় মহিলা সংস্থা,মহিলা ও শিশু বিষক মন্ত্রনালয়ের এই প্রকল্পের মেয়াদ ২০১৭ থেকে মার্চ ২০২২ পর্যন্ত। মোট জনবল ১৯৬০ জন দেশের প্রতিটি উপজেলায় রয়েছে এই তথ্য আপা প্রকল্প। রংপুর জেলার পীরগঞ্জেও তথ্য আপার কার্যক্রম চলছে বলে জানিয়েছেন তথ্যসেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) জান্নাতুল রেহেনা। জানা গেছে, রংপুরের পীরগঞ্জে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের সমস্যায় পাশে দাঁড়ান তথ্য আপা। প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি গিয়েও সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন। ‘তথ্য আপা’ দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।বিশেষ করে স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্রীদের কাছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সরকারের নতুন সেবামূলক একটি প্রকল্প ‘তথ্য আপা’।তথ্য আপার কাজ হলো তৃণমূলে নারীদের দোরগোড়ায় তথ্যসেবা পৌঁছে দেয়া। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, ব্যবসা, জেন্ডার, আইন এই ৬টি বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করা। নারীদের ক্ষমতায়নের উদ্দেশ্যে এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে জাতীয় মহিলা সংস্থা। উপজেলা তথ্য সেবা সূত্রে প্রকাশ, এ কার্যক্রম পরিচালিত হওয়ার পর থেকেই চাকুরি সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য, চাকুরির দরখাস্ত, রেজাল্ট, চিকিৎসা সেবা ( প্রেসার, গ্লুকোজ, ওয়েট, উচ্চতা) , অনলাইনে ব্যবসা, কৃষি সেবা, নারী নির্যাতন ও আইনী সহায়তা দেয়া হচ্ছে। এ পর্যন্ত উপজেলায় ৫ হাজার ২শত ৪১জন নারী তথ্য আপার কাছ থেকে তথ্য সেবা নিয়েছেন। গত কয়েক মাসে অনেক বাল্যবিয়ে বন্ধ,স্বামী ,শ্বাশুড়ী,দেবর ও ননদ কর্তৃক নারী নির্যাতনের সমাধান, যৌতুক নিরোধ ও প্রতি মাসে তৃণমূল নারীদের নিয়ে উঠোন বৈঠক করে তাদেরকে সচেতন করা হয়েছে। সুবিধাভোগী মোছাঃ শৈলী বেগম , লাকী বেগম জানিয়েছেন, তথ্য আপা বিনা মূল্যে সহায়তা দেন।তথ্য আপারা গ্রামে এসে ইন্টারনেট, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং কৃষিবিষয়ক উঠোন বৈঠকের মাধ্যমে আলোচনা করে থাকেন। তারা আমাদের বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেন। আমরা এখন অনেক কিছু শিখেছি। উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) জান্নাতুল রেহেনা বলেন,আমারা নারীদের সবধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করি। অফিসের পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে উঠোন বৈঠক করে ডিজিটাল সেবা কী, কিভাবে সেবা পাওয়া যাবে এসব বিষয়ে আলোচনা করি। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে সেবার মান আরো বাড়ানো হবে এবং এ কার্যালয়ে নারীদের সকল ধরনের সেবা বিনামূল্যে দেয়া হবে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে নারীদের ক্ষমতায়নের (প্রকল্প-২) জন্য দেশের ৪৯০টি উপজেলায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। পাশাপাশি সরকার মেয়েদের জন্য যে বিনামূল্যে লেখাপড়াসহ সুবিধা দিচ্ছে এ ছাড়াও উঠোন বৈঠকে আমার বাড়ি আমার খামারসহ সরকারের সব সুবিধার কথা জানানো হয়। তথ্যসেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) জান্নাতুল রেহেনা বলেন, দুইজন তথ্য সেবা সহকারী মোছাঃ হানিফা খাতুন এবং লায়লা তুজ জাহান ছাড়াও একজন অফিস সহায়ক সেবাকেন্দ্রে নিয়োজিত রয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com