মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০১:৩৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
১১ বছরেরও শেষ হয়নি সুন্দরগঞ্জ চার পুলিশ হত্যার বিচারিক কার্যক্রম  মেহেদী শান্তা জুটির ৪ বই পাঠকপ্রিয় হয়েছে গাইবান্ধা-৩ আসনের সাবেক এমপি মোখলেছুর মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক গাইবান্ধায় সড়ক দূর্ঘটনায় দুই যুবক নিহত শমসেরনগর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার চায় শিক্ষার্থীরা দিনাজপুর বৃদ্ধাশ্রমে কেক কেটে সময়ের আলোর ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন আধিপত্য বিস্তারে মোটর মালিক সমিতির লিপনকে সরিয়ে দিতে গুলিবর্ষণ: গ্রেফতার ৪ রংপুরে জাতীয় বাজেট প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট প্রত্যাশা শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত উচ্ছেদে অভিযানের পর ধ্বংসাবশেষ অপসারণ করেছে পৌরসভা  চিলমারী কল্যাণ সমিতির কমিটি গঠন

নবাবগঞ্জে কবুতরের খামার করে স্বাবলম্বী শাফিউল ইসলাম

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪১৯ বার পঠিত

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে সৈয়দ হারুনুর রশীদ।- দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে কবুতরের খামার করে তা থেকে মাসিক ৫০ হাজার টাকা আয় করছেন মোঃ শাফিউল ইসলাম খন্দকার নামে এক কবুতর খামারের মালিক। শাফিকুল ইসলাম খন্দকার উপজেলার শালখুরিয়া ইউনিয়নের বেড়ামালিয়া গ্রামের মৃত আজিজুল হক খন্দকারের ছেলে।তিনি বর্তমানে উপজেলার দলার দরগা বাজারে বাস করেন এবং সেখানেই তার কবুতরের খামার গড়ে তুলেছেন। শাফিউল জানান বাজারে তার বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল। সেই ব্যবসা গুটিয়ে সেখানে তিনি কবুতরের খামার করেছেন। তিনি জানান ১৯৯৯ সালে ১০ জোড়া দেশি গিরিবাজ লোটন জাতের কবুতর দিয়ে তার কবুতর পালনের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৭ সালে তার ওই কবুতরের সংখ্যা দাঁড়ায় ১০০ জোড়ায়। এরপর ২০১৭ সাল থেকে যোগ হয় ৩০ জোড়া ফেন্সি জাতের কবুতর। ২০২০ সালে তার খামারে কবুতরের সংখ্যা দাাঁড়ায় ২০০ জোড়ায়।যার মূল্য প্রায় ১৫ লাখ টাকা। তার কবুতরের খামারে কিং, মডেনা, মারটেজ, জ্যাকোবিন, বোখারা, স্ট্রেচার, লাহরী, মুন্ডিয়ান, বোম্বাই, লংফেস, বিউটিহোমা, ওরিয়েন্টাল, করমনা, বাগদাদী ও হোমা সহ ৩০ জাতের কবুতর রয়েছে। তার খামারে ৭০০ টাকা জোড়া থেকে ১ লাখ টাকা জোড়া মূল্যের কবুতর রয়েছে। যা থেকে বেচা কেনা করে সব খরচ বাদ দিয়ে তিনি প্রতিমাসে ৫০ হাজার টাকা আয় করছেন। তিনি আরও জানান তার খামারে কবুতরকে খাদ্য হিসাবে গম, ভূট্টা, হেন্টি, বাজরা,  সূূর্যমুখী,  কুসুম ফুলের বিচি, সাদা ও কালো মটর ডাল,মসুর ডাল ও ছোলা দিয়ে থাকেন। এতে তার প্রতিমাসে ১৫ হাজার টাকা ব্যয় হয়।কবুতরের কোন অসুখ বা সমস্যা দেখা দিলে তিনি নিজের অভিজ্ঞতায় ও অন্যস্থানে খামারীদের নিকট পরামর্শ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করেন। উপজেলা এলাকায় এরকম কতটি কবুতরের খামার রয়েছে জানতে চাইলে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা নাসিরুল ইসলাম জানান তিনি এলাকার বাইরে রয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com