মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

পাকুন্দিয়ায় ঘুমন্ত অবস্থায় প্রবাসী স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০
  • ১০৩ বার পঠিত

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) থেকে সুবল চন্দ্র দাস।- পারিবারিক বিরোধের জেরে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় প্রবাসী স্বামীর হাতে মাহফুজা খাতুন (৩৫) নামের এক গৃহবধু খুন হয়েছেন। সোমবার (২০ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের দগদগা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরই ঘাতক স্বামী আবু বাক্কার সিদ্দিক গা ঢাকা দিয়েছে। নিহত গৃহবধু মাহফুজা ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বীরইখালপাড় গ্রামের সোহরাব উদ্দিনের মেয়ে। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার ২১ জুলাই সকালে নিহতের পিতা সোহরাব উদ্দিন বাদী হয়ে আবু বাক্কার সিদ্দিককে অভিযুক্ত করে পাকুন্দিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, দগদগা গ্রামের মৃত মুর্শিদ উদ্দিনের ছেলে আবু বাক্কার সিদ্দিকের সঙ্গে প্রায় ১২ বছর আগে পারিবারিক ভাবে মাহফুজা খাতুনের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে জিহাদ (১০) ও জাহিদ (৫) নামের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। পারিবারিক অভাব অনটনের কারণে আবু বাক্কার সিদ্দিক শ্বশুর বাড়ির সহযোগিতায় আনুমানিক ৬ বছর আগে চাকুরী নিয়ে সৌদি আরব যায়। বিদেশ যাওয়ার পর থেকে স্ত্রীকে ভরণ পোষণের খরচ না দেওয়ায় মাহফুজা দুই সন্তান নিয়ে তার পিতার বাড়িতে চলে যান। এ নিয়ে প্রায়ই স্বামীর সাথে মুঠোফোনে মাহফুজার ঝগড়া হতো। এক পর্যায়ে দুইজনের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দেয়। গত ১৭ জুলাই আবু বাক্কার সিদ্দিক সৌদি আরব থেকে ছুটি নিয়ে নিজ বাড়িতে আসেন। পরে দুই পরিবারের লোকজন বসে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সৃষ্ট মতবিরোধ মিমাংসা করে দেন। পরে মা নাজমা খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে মাহফুজা স্বামীর বাড়িতে যান। কিন্তু আবু বাক্কারের মনের মধ্যে ছিল অন্য রকম পরিকল্পনা। পূর্ব বিরোধের জের ধরে ২০ জুলাই রাত সাড়ে ১২টার দিকে আবু বাক্কার সিদ্দিক চাপাতি দিয়ে ঘুমন্ত স্ত্রীকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যান। এ সময় মাহফুজার ডাকচিৎকার শুনে মা নাজমা আক্তারসহ বাড়ির অন্যান্য লোকজন এগিয়ে আসলে উপস্থিত সকলের সামনে স্বামী তাকে কুপিয়েছে বলে জানান। এর পরই তিনি মারা যান। খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে পাকুন্দিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পাকুন্দিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘাতক স্বামীকে গ্রেফতার পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com