রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১০:২৮ অপরাহ্ন

পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার সাত গ্রামের মানুষের দাবী আজও বাস্তবায়িত হয়নি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৩ মে, ২০২১
  • ১৪৭ বার পঠিত

এম এ আলম বাবলু, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি।-দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার সাত গ্রামের মানুষের পুর্ণাঙ্গ দাবী আজও বাস্তবায়িত হয়নি। এই এলাকার হাজার হাজার মানুষ তাদের ন্যায্য দাবী বাস্তবায়নে একাধিক বার সভা-সমাবেশ, মানববন্ধর করেও কোন সুফল পায়নি। জানা গেছে, দেশের বৃহৎ বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি কর্তৃপক্ষ ২০১১ সালে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার সাত গ্রামের ৬শ’ ৪৬ একর জমি অধিগ্রহণ করেন। অধিগ্রহণকৃত জমি এলাকার ভূমিহীন ব্যবসায়ীর ক্ষতিপূরণ, মসজিদ, চাকুরী, শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরণসহ বেশ কিছু দাবী-দাওয়া বাস্তবায়নের জন্য খনি কর্তৃপক্ষ প্রতিশ্রæতি দিলেও অজ্ঞাতু কারণে আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। বড়পুকুরিয়া খনি এলাকার ভিতর দিয়ে বৈগ্রাম বাজার থেকে বড়পুকুরিয়া বাজার পর্যন্ত আনুমানিক ২ কিলোমিটার একটি রাস্তা থাকলেও প্রয়োজনীয় সংস্কার ও মেরামতের অভাবে রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই রাস্তা দিয়ে বড়পুকুরিয়া এলাকার বলরামপুর, মৌপুকুর, পাতিগ্রাম, বাশপুকুর, বৈদ্যনাথপুর, জিগা গাড়ী গ্রামের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। রাস্তাটি নির্মানের জন্য একাধিকবার আবেদন-নিবেদন করেও কোন সুফল পাওয়া যায়নি। এছাড়াও তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উড়ে আসা ছাইতে এই এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে। কয়লাখনির কারনে ভুগর্ভস্থ পানি পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে এলাকার মানুষ পানি সমস্যায় ভুগছে। কয়লাখনির আশে পাশের এলাকা গুলোতেও এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। কয়লাখনির কারণে জমি দেবে যেয়ে জলাশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। পার্বতীপুর কয়লাখনি এলাকার বৈদ্যনাথপুর গ্রামের অধিবাসী জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দাবী আদায় বাস্তবায়ন কমিটির উপদেষ্টা সোলায়মান সামি বলেন, ২০১১ সালে কয়লাখনি কর্তৃপক্ষ সাত গ্রামের ৬শ’ ৬৪ একর জমি অধিগ্রহণের সময় যেসব দাবী বাস্তবায়নের জন্য প্রতিশ্রতি দিয়েছিলেন সেসব দাবী পুুরোটা আজও বাস্তবায়িত হয়নি। বৈগ্রাম বাজার থেকে বড়পুকুরিয়া বাজার পর্যন্ত ২ কিলোমিটার রাস্তা জরাজীর্ণ হয়ে পরায় জন চলাচল বিঘিœত হলেও আজও রাস্তাটির দিকে কেউ নজর দিচ্ছে না। বিভিন্ন সময় দাবী বাস্তবায়নের জন্য সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন করেও কোন সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি অনতিবিলম্বে কয়লাখনি কর্তৃপক্ষের সাথে সাত গ্রামের বাসিন্দাদের পুরো দাবী বাস্তবায়নের জোর দাবী জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com