মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন

পীরগঞ্জে লাইসেন্স বিহীন ঔষধের দোকানের ছড়াছড়ি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই, ২০২০
  • ১৭৭ বার পঠিত

কনক আচার্য ।- রংপুর জেলার পীরগঞ্জে এখন লাভজনক কারবার হচ্ছে ঔষধ এর ব্যবসা। এ কারণে শিক্ষিত অর্ধশিক্ষিত, বেকাররা যেখানে সেখানে ঔষধের দোকান খুলে বসছেন। স্বাধীনতার পর এই উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে মিলে ঔষধের ফার্মেসি ছিল ৫০টির মত। সেখানে এখন প্রায় ৫ শতাধিক ফার্মেসী গড়ে উঠেছে। কিন্তু অধিকাংশ ফার্মেসীর লাইসেন্স নেই। অধিকাংশ ঔষধ বিক্রেতার প্রশিক্ষণ নাই। পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকলেও তারা সকলেই নামের সাথে ডাক্তার শব্দটি ব্যবহার করছেন। এলাকায় ঔষধের দোকানদাররা ডাক্তার হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন। এই স্ব-ঘোষিত ডাক্তার সাহেবরা কোন প্রকার ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই রোগীর চাহিদা এবং কথামত ঔষধ বিক্রি করে থাকেন। এরা ঔষধের মেয়াদের তোয়াক্কা করেন না। নিজেরা তাদের দোকানে রোগী দেখেন এবং গ্রামেও রোগী দেখতে যান। গ্রাম বাংলার স্ব-ঘোষিত ডাক্তার সাহেবদের ফিস কম হওয়ায় এবং তাদের কাছে সস্তা চিকিৎসা পাচ্ছে গ্রামের গরীব নিম্ন আয়ের মানুষ। পাশাপাশি এ অভিযোগও রয়েছে যত্রতত্র গড়ে উঠা ফার্মেসী গুলোর মালিক বা স্বঘোষিত ডাক্তারগণ ফিস কম নিলেও অধিক মুল্যে ঔষধ বিক্রি করে থাকেন। একটি নির্ভরযোগ্য সুত্র বলেছে, পীরগঞ্জে পাঁচশাতাধিক ফার্মেসী থাকলেও লাইসেন্স রয়েছে একশর মত। উপজেলা সদরেও লাইসেন্স বিহীন ফার্মেসী রয়েছে। এই পরিস্থিতি সম্পর্কে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ রুহুল আমি বুলেট চিকিৎসা ব্যবস্থায় নানা রকম সংকটের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বজ্রকথাকে বলেন, ঔষধ বিক্রি, মানের বিষয়টি ড্রাগসুপার সাহেব এর দেখার কথা। আর লাইসেন্সে তো থাকতেই হবে!

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com