বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী   পার্বতীপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইসচেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা বন্যার পানিতে সাঁতরে বন্যার্তদের ত্রাণ সংগ্রহ পার্বতীপুর পৌরসভায় মৌসুমি ফল উৎসব বড় পুকুরিয়া কয়লা খনির কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের মানববন্ধন পার্বতীপুর পৌরসভায়  ড্রেন নির্মান কাজের উদ্বোধন দিনাজপুর-বিরামপুর -ঘোড়াঘাট সড়কে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে

বগুড়ায় চোর সন্দেহে এক যুবককে নির্যাতন: থানায় অভিযোগ

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
  • ২৬০ বার পঠিত

উত্তম সরকার, বগুড়া প্রতিনিধি।- বগুড়ার কাহালুতে আতাইর রহমান শিরু (২৪) নামের এক যুবককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে চোর সন্দেহে পায়ে পেরেক ও সুই ঢুকিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নির্যাতনের ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) রাতে এ ঘটনায় শিরুর বাবা মজনু সোনার বাদী হয়ে পাঁচজনের নামে কাহালু থানায় মামলা করেছেন। এর আগে বুধবার (১৬ জুন) গভীর রাতে কাহালু উপজেলার অহর মালঞ্চা গ্রামে আতাইর রহমান শিরুকে ঘুম থেকে তুলে ডেকে নিয়ে গিয়ে এ অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়।

অভিযোগকারী শিরুর বাবা মজনু সোনার বলেন, আমার ছেলে শিরু বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিল। ঘুমে থাকা অবস্থায় বুধবার গভীর রাতে শিরুকে ঘুম থেকে তুলে নিয়ে যান একই গ্রামের সেলিনা, আছিয়াসহ তার পরিবারের ৫/৬ ছয়জন নারী-পুরুষ। পরে তাকে সেলিনার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে গ্যাস সিলিন্ডার চুরির অভিযোগে প্রথমে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়। পরে শিরুকে আঙুলে সুই ও বাম পায়ে হাতুড়ি দিয়ে লোহার পেরেক ঢুকিয়ে দেয়া হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে কাহালু থানা পুলিশ শিরুকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া তিন মিনিট ছয় সেকেন্ডের ভিডিও চিত্রে দেখা গেছে, লাঠি হাতে একব্যক্তি চোর সন্দেহে আতাউর রহমান শিরুর দুই পা বেঁধে নির্যাতন করছেন। আর চারপাশে স্থানীয় লোকজন তা দেখছে। ভিডিওটি প্রকাশ হওয়ার পর ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

এ বিষয়ে কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমবার হোসেন বলেন, নির্যাতনকারীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com