1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১১:৫১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বগুড়ার শিবগঞ্জে বাস্তবায়িত বিষমুক্ত নিরাপদ আম বাগান পরিদর্শন করেন ইউএনও  মুজিববর্ষে শেরপুরে আনছার ভিডিপি’র উদ্যোগে গাছের চারা বিতরণ ঠাকুরগাঁও ৭ দিনের লকডাউন পীরগঞ্জে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর তৎপরতা ফুলবাড়ীতে হিজড়া সম্প্রদায়ের যাচাই বাছায়ের জন্য ও অবৈধ্য হিজড়া সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশের মানুষের কল্যাণ ও উন্নতি হয় -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি সাপাহারে ছাত্রাবাস থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার বীরগঞ্জে শর্ত অমান্য করে বালু উত্তোলন বগুড়ায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহতদের থেকে পাওয়া গেল ৫৯ বোতল ফেন্সিডিল অভিযোগ পীরগঞ্জের এক হুজুর আর এক হুজুরের টাকা কেড়ে নিয়েছে অন্যের আর্টিকেল নিজের নামে চালিয়ে গুগল রেডলিস্টে বেরোবি শিক্ষক সমালোচনার ঝড়

বাঙালীর পিতা হারানোর দিন ১৫ই আগস্ট

  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২০
  • ৯০ বার পঠিত

-লুৎফর রহমান সাজু

১৯৭৫খ্রী: ১৫ই আগস্ট আমারা স্বপরিবারে পিতা হারিয়েছিলম।

আজ ১৫ই আগস্ট,বাঙালীর পিতা হারানোর দিন। কান্নার দিন, শোকের দিন, শোককে শক্তিতে পরিনত করার দিন। যখন যে জাতি বিশ্বাস ঘাতক হয় তখন সে জাতি পিতাকে অস্বীকার করে। ভাগ্য উন্নয়নের স্বপ্নদ্রষ্ট্রাকে অস্বীকার করে। এমন জাতির ভাগ্যে কালিমা লিপ্ত হয়। পরিচয়হীন হয় বিশ্ব দরবারে। এমনই এক ঘোর অমানিশার অন্ধকারে নিপতিত হয়েছিল বাঙালি। ভুলে গিয়েছিল পিতাকে অস্বীকার করেছিল ভাগ্যউন্নয়নের রূপকার। বঙ্গবন্ধু এবং জাতির জনক উপাধিতে ভূষিত একজন সফল রাষ্ট্রনায়কের এমন বেদনা বিধুর অধ্যায় জাতি শিউরে উঠবে যতদিন বাঙালী নামটি থাকবে। এমন জঘন্য বর্বরম হত্যা কান্ডে পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। নিলজ্জ্ব এই হত্যা কান্ডে ঘাতকরা হয়তো সব কিছু শেষ ভেবে ছিলেন কিন্তু না, তা সত্য নয়। কেননা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শেকড় মাটির উপরে নয়। মাটির অনেক গভীরে। তিনি মাটির মানুষের স্বপ্ন, মাটি ও মানুষের নেতা। বাঙ্গালী জাতি যখনই কোন সংকটে পিতিত হয় তখনই স্বাধীনতার অমর বানীর সঙ্গে যে নামটি আমাদের স্মরণে আসে তা হলো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

আমাদের এই ভূখন্ড,মানচিত্র,দেশ জাতির নামটি বিশ্ব দরবারে এত গর্বভরে উচ্চারণ হতো না, যদি না বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হতো। বাংলার মাটি যে অবিসংবাদিত নেতার জন্ম দিয়েছে, ধন্য হয়েছে তিনি হলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধু এবং জাতির জনক এই শব্দ দুটি দিয়েই তার অবদান আমাদের সামনে চলে আসে। বিশ্বে যে সকল দেশ স্বাধীন হয়েছে সে সব দেশে স্বাধীনতার জন্য মহীরুহ সদৃশ দেশ নেতা অবদান রেখেছেন। বিশ্ব ইতিহাসের এই সব মহান ব্যাক্তিদের একজন হলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যিনি জন্ম নিয়েছিলেন বাংলার মাটিতে। বাঙালী জাতি মুক্তির আকাঙ্কায় উদ্দীপ্ত হয়ে উঠেছিল। তার উদাত্ত আহবানেই বাঙ্গালী অংশ গ্রহন করে গৌরবময় ঐতিহাসিক মুক্তিযুদ্ধে। ছিনিয়ে নিয়ে আসে লাল সবুজের পতাকা,শোভিত মানচিত্রের বাংলাদেশ।
বঙ্গবন্ধুর পারিবারিক,শিক্ষা এবং রাজনৈতিক জীবনালখ্যে দেখা যায় তিনি ১৯২০ খ্রী: ১৭ মার্চ গোপাল গঞ্জ জেলার টুঙ্গিবাড়া গ্রামে এক সভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। পিতার নাম শেখ লুৎফর রহমান, মাতার নাম সায়েরা খাতুন। ছয় ভাই বোনের মধ্যে তিনি ছিলে তৃতীয়। বাবা মা ডাকতেন খোকা বলে। ০৭ বছর বয়সে নিজ গ্রামের গিমাডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তার শিক্ষা জীবন শুরু। নয় বছর বয়সে ১৯২৯ সালে গোপালগঞ্জ পাবলিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি হয়। ১৯৪২ সালে গাপালগঞ্জ মিশন হাসপাতাল থেকে এন্ট্রান্স (এস,এস,সি) পাস করেন। তার পর ১৯৪৭ কলকাতা ইসলামিয়া কলেজ থেকে বি,এ পাস করে এবং একই সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। রাজনৈতিক কারনে তার লেখা পড়া করা সম্ভব হয়নি।

ছাত্রজীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির কার্যক্রম শুরু হয়। ছাত্র জীবনের ১৯৪৮সালে তিনি মুসলিম ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন এবং পাকিস্থানে গর্ভনর জেনারেল কায়েদ-ই-আযম মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ উদূর্কে একমাত্র রাষ্ট্র ভাষা করার ঘোষনা দিলে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ছাত্র সমাজ প্রতিবাদে ঝড় তোলে। ফলে তাকে জেলে যেতে হয়। জেলে বসেই তিনি আন্দোলনের উৎসাহ দেন। ১৯৪৯ সালে আওয়ামী মুসলীম লীগ গঠিত হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুগ্ন সম্পাদক নির্বাচিত হয়। ১৯৫৪ সালে তিনি পূর্ববঙ্গ প্রাদেশিক পরিষদ এবং ১৯৫৫ সালে গণপরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন। পূর্বপাকিস্তান সরকারের মন্ত্রী হিসেবে দুইবার দায়িত্ব পারন করেন। রাজনীতি আনেক ত্যাগ আর কষ্ট করে তিনি ১৯৬৬ সালে বাঙ্গালীর মুক্তির সনদ ৬ দফা কর্মসূচি পেশ করেন। এরপর আগর তলা সড়যন্ত্র মামলা প্রহসন বিচার তারপর উত্তাল বাঙ্গালীর মুক্তির দিশারী বঙ্গবন্ধুর কন্ঠে মুক্তিযুদ্ধের ডাক। ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে বিশাল জনসমুদ্রে তিনি ঘোষনা করলেন ………………
এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম
এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম
জয় বাংলা।

নয় মাস স-সন্ত্র সংগ্রামের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করে। স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু দেশ পরিচালনার দায়ীত্বনেন। কিন্তু দু:খের বিষয় দেশী বিদেশী চক্রান্তে পথভ্রষ্ট কিছু সংখ্যক সেনা কর্মকর্তা ১৫ই আগস্ট ১৯৭৫ বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা করে। তার মধ্যদিয়ে বিশ্ব দরবারে একটি কালো অধ্যায়ের সূচনা হয়।

তাই আজ ১৫ আগস্ট আমাদের পিতা হারানোর দিন, আমাদের কান্নার দিন,আমাদের শোকের দিন, সেই সাথে শোককে শক্তিতে রূপান্তর করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বাস্তাবায়ন করার শপথ নেয়ার দিন। তাই কবি অন্নদা শঙ্কর রায়ের কন্ঠে কষ্ঠ মিলাই

যতদিন রবে পদ্ম-যমুনা
গৌরী-মেঘনা বহমান
ততোদিন রবে কীতি তোমার
শেখ মুজিবুর রহমান ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com