বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পার্বতীপুরে গুরুত্ব ও সচেতনতা বিষয়ক কর্মশালা পার্বতীপুরের রেলওয়ে কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানায় স্বল্প জনবল দিয়েই চলছে নির্ধারিত কার্যক্রম রাজাকাররা কোটার নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বড়পুকুরিয়ায় ১২টি গ্রাম  ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির মানববন্ধন পীরগঞ্জ সাঈদের দাফন সম্পন্ন কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

রংপুরে ভূমিদস্যুদের কবল থেকে বাঁচতে সংবাদ সম্মেলন

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১ জুন, ২০২৩
  • ১৫৮ বার পঠিত

রংপুর থেকে হারুন উর রশিদ।- রংপুরে জমি নিয়ে বিরোধে অকালে স্বামীর মৃত্যুতে চরম বিপাকে পড়েছেন রোকেয়া বেগম নামের এক অসহায় নারী। এরইমধ্যে ভূমিদস্যুরা আদালতের রায় অমান্য করে ওই নারীর ভোগদখলে থাকা জমি দখলে নেওয়ার চেষ্টায় সীমানা প্রাচীর ভাংচুর, গাছপালা কেটে ফেলাসহ তার কেয়ারটেকারের উপর হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে বিধবা এ নারী তার তিন ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

১ জুন দুপুরে রংপুর নগরীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে ভূমিদস্যুদের কবল থেকে বাঁচতে প্রশাসনের কাছে আইনি সহায়তার পাশাপাশি নিরাপত্তা চেয়ে আকুতি জানান রোকেয়া বেগম।
লিখিত বক্তব্যে ওই নারী বলেন, রংপুর মেট্রোপলিটন হাজীরহাট থানাধীন ৩ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তম বারো ঘড়িয়া গ্রামে আমি নিজ নামে (দলিল নং-১৪৫৬৬/১৮, তারিখ ১২/০৯/২০১৮ ও দলিল নং-১২৮৯৮/১৫, তারিখ ২০/০৮/২০১৫ইং) ক্রয় করা সম্পত্তি ভোগদখল করে আসছি। এই জমি নিয়ে স্থানীয় উত্তম বারো ঘড়িয়া গ্রামের সাইদুল ইসলাম, জরিপ উদ্দিন, রহিদুল ইসলাম, আব্দুল জলিল ও রাধাবল্লভ এলাকার মানিক মিয়ার সাথে মামলা মোকদ্দমা চলছিল। বিজ্ঞ আদালত আমার পক্ষে রায় প্রদান করেছেন। জমি আমার ভোগদখলে থাকা স্বত্ত্বেও আসামিরা ওই জমি অন্যায়ভাবে ভোগদখলের পাঁয়তারা করে আসছেন।
তিনি আরও বলেন, গত রোববার (২৮ মে) সকালে আসামিরা অজ্ঞাত আরও ৫-৬ জনকে সাথে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমার জমিতে প্রবেশ করে সীমানা প্রাচীর ভাংচুর ও গাছপালা কাটতে থাকে। এসময় আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম না। স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে আমার কেয়ারটেকার সজিবুর রহমান সজিবকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে দেই। আমার কেয়ারটেকার সেখানে উপস্থিত তাদের বাধা দিলে আসামিরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে এলোপাথারী মারপিট করে। একপর্যায়ে হত্যার উদ্দেশ্যে সজিবের মাথায় আঘাত করে তাকে গুরুতর আহত করা হয়। হামলার এ ঘটনা দেখার পর কেয়ারটেকার সজিবকে রক্ষা করতে স্থানীয় পথচারী লিমন ছুটে গেলে আসামিরা তাকেও মারধর করেন। পরে গুরুত্বর আহত সজিবের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে।
রোকেয়া বেগম অভিযোগ করে বলেন, আসামিরা আমার জমির ৫টি গাছ ও সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলেছেন। জমিকে কেন্দ্র আমার স্বামীকে বিভন্ন সময়ে নানাভাবে লাঞ্ছিত হতে হয়েছে। এই লাঞ্ঝনার কারণে মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে আমার স্বামী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। বর্তমানে এই ভূমিদস্যুদের জন্য আমি আমার পরিবারের ৩ ছেলে ও ১ মেয়ে সন্তানকে নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তা ও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। ভূমিদস্যুরা ইতিপূর্বে বিভিন্ন জায়গায় সিন্ডিকেট তৈরি করে অনেকের জমি দখল করেছেন। বর্তমানে আমার ছেলেদের নামে বিভিন্ন ধরণের হয়রানিমূলক মামলা করেছেন তারা। এ পরিস্থিতিতে আমি প্রশাসনের কাছে আইনি সহায়তার পাশাপাশি আমার এবং সন্তানদের নিরাপত্তা দাবি করছি। সংবাদ সম্মেলনে রোকেয়া বেগমের পরিবারের লোকজন উপস্থিত ছিল। এদিকে এসব অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে সাইদুল ইসলাম ও রহিদুল ইসলামের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তারা কল রিসিভ না করায় কারো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com