শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

রংপুরে স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্স

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০২৩
  • ৯৫ বার পঠিত

রংপুর প্রতিনিধি।-স্কুল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে সঞ্চয়ের যে অভ্যেস গড়ে উঠবে, তা শিক্ষার্থীদের সারা জীবন সুফল দেবে। শিক্ষার বিপরীতে শিক্ষার্থীদের সঞ্চয় ভবিষ্যৎ বিনির্মাণের উত্তম বিনিয়োগ। সব বাণিজ্যিক ব্যাংকে স্কুল ব্যাংকিং হিসাব খোলার সুযোগ আছে, তাই শিক্ষার্থীদের এ ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করতে পারলে ভবিষ্যতে ভালো ফল পাওয়া যাবে। কারণ শিক্ষার্থীদের আজকের সঞ্চয় তাদের ভবিষ্যতের সবচেয়ে ভালো বিনিয়োগ। এক্ষেত্রে বাবা-মা, অভিভাবক, শিক্ষক-সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে রংপুর জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বাংলাদেশ ব্যাংক রংপুরের নির্বাহী পরিচালক আনোয়ারুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানে ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট কাজী মোরতুজা আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংক রংপুরের পরিচালক (প্রশাসন) মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন, বাংলাদেশ ব্যাংক প্রধান কার্যালয়ের যুগ্ম পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন।
ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট কাজী মোরতুজা আলীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্যাংক এশিয়া রংপুর শাখার প্রধান ও এফএভিপি এম. এ. হামিদ।
অনুষ্ঠানে স্কুল ব্যাংকিংয়ে সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের কার্যক্রম তুলে ধরে বক্তব্য দেন, সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রাশেদ মাহবুব রব্বান, সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক রশিদুল ইসলাম, অক্সব্রিজ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক মোস্তাক আহমেদ, একই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী আজমাইন আরবী, ফাহিম রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী রিফা সানজিদা প্রাপ্তি। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের এফভিপি মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম শিকদার।
কনফারেন্স অনুষ্ঠান শুরুর আগে জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টার চত্বরে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে দিনব্যাপী কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। পরে একটি বর্ণিল শোভাযাত্রা নগরীর গুরুত্ব সড়ক প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রা শেষে বেলা এগারোটায় জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টার মিলনায়তনে আলোচনা অনুষ্ঠানে মিলিত হন অংশগ্রহণকারী ৪৪টি ব্যাংকের প্রতিনিধি ও ৪৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকগণ। আলোচনা পর্ব শেষে স্কুল ব্যাংকিং বিষয়ক ভিডিও প্রদর্শন, সাংস্কৃতিক পরিবেশনা, কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
উল্লেখ্য, ২০১০ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের উদ্যোগে চালু হয় স্কুল ব্যাংকিং। এতে লেনদেন করার সুযোগ পায় ১১-১৭ বছর বয়সি তরুণ প্রজন্মের শিক্ষার্থী, যাদের কোনো আয়ের উৎস নেই। এখানে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আগে ১০ টাকা লাগত, যদিও এখন তা বৃদ্ধি পেয়ে ১০০ টাকা হয়েছে। সাধারণত শিক্ষার্থীরা ঈদ, পূজা-পার্বণ কিংবা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বাবা-মা, আত্মীয়স্বজনের কাছ থেকে যে নগদ অর্থ পেয়ে থাকে অথবা স্কুল টিফিনের জন্য যে অর্থ পেয়ে থাকে, তা থেকে কিছু অর্থ বাঁচিয়ে রেখে তাদের নিকটস্থ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাংক শাখায় যেন জমিয়ে রাখতে পারেÍএই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই স্কুল ব্যাংকিংয়ের যাত্রা শুরু হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com