বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

রংপুর নগরীর ৩৩ ও ৩২ নং ওয়ার্ডের মানুষ পানিবন্দি চরম দুর্ভোগ

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১০৮ বার পঠিত

রংপুর প্রতিবেদক।- টানা ১২ ঘন্টার স্মরণকালের ভয়াবহ বৃষ্টিপাতে রংপুর নগরীর বর্ধিত এলাকার ৩৩, ৩২ ও ৩১ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন পাড়া মহল্লার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে । এই তিন ওয়ার্ডের অন্তত ২০ টি পাড়া-মহল্লা হাঁটু থেকে কোমর পানি পর্যন্ত তলিয়ে গেছে। বাড়ি-ঘরে পানি প্রবেশ করায় অনেকেই বাড়ি ঘর ছেড়ে উঁচুস্থানে আশ্রয় নিয়েছে। কয়েকটি বাজারে পানি প্রবেশ করায় দোকানপাট বন্ধ করে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ফলে ওই সব ওয়ার্ডের মানুষজনের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।
এদিকে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের স্থানীয় নারী কাউন্সিলর নাজমুন নাহার নাজমা, সমাজসেবক শফিকুল ইসলাম ও ৩২ নং ওয়ার্ড সামাজিক উন্নয়ন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হারুন উর রশিদ সোহেলসহ বিভিন্ন স্থরের নেতৃবৃন্দ পানিবন্দি বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেছেন। সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাসও দিয়েছেন।
সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল রোববার টানা ১২ ঘন্টার স্মরণকালের ভয়াবহ বৃষ্টিপাতে নগরীর বর্ধিত এলাকার ৩২ নং ওয়ার্ডের দমদমা লক্ষণপাড়া, মোগলেরবাগ, শান্তিপাড়া, খোর্দ্দ তামপাট, মোল্লাপাড়া, আরাজী তামপাট, সর্দারপাড়া, কুটিরপাড়া, আদিবাসীপাড়া, ৩৩ নং ওয়ার্ডের হোসেন নগর, বগুড়াপাড়া, মাঠেরহাট, হিন্দুপাড়া, নতুন মুসলিমপাড়া, মেকুড়া, বসুনিয়াপাড়া, ঠাটারিপাড়া ও ৩১ নং ওয়ার্ডের পানবাড়ি, নাজির দিঘর, বনগ্রাম, বৃদ্ধিমান, মানজাই, আরাজী ধর্মদাসসহ বিভিন্ন এলাকায় বেশিরভাগ রাস্তা-ঘাট তালিয়ে যাওয়ায় মানুষের যাতায়াত ও চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে পড়েছে। অনেকের বাড়ি-ঘরে পানি উঠেছে। এতে অনেক পরিবারই না রান্না করতে পারেনি। না খেয়ে জীবন যাপন করতে হচ্ছে। অনেকেই আবার হালকা শুকনো খাবার খেয়ে দিনানিপাত করছেন।
নগরীর ৩৩ নং ওয়ার্ডের হোসেন নগর বাজারে কথা হয় শিক্ষক সোহেল আহমেদের সাথে। তিনি জানান, ঘাঘট নদীর তীরবর্তী হওয়াতে হোসেন নগর, বগুড়াপাড়া, মাঠেরপাড়, হিন্দুপাড়াসহ আশে-পাশের বেশ কয়েকটি এলাকার মানুষ গত দুই দিন ধরে পানি বন্দি হয়ে রয়েছে। বাড়ি-ঘরেও পানি প্রবেশ করেছে। আমার চরম দুর্ভোগে পড়েছি।
চাকুরীজিবী নজরুল ইসলাম জানান, তিনি বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করেন। বৃষ্টির পানিতে রাস্তা-ঘাট তলিয়ে যাওয়াতে তার বাড়িতেও পানি প্রবেশ করেছে। তিনিসহ তার পরিবার ঘরে পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন। গত দুই দিনেও পানি নেমে যায় নি।
একই এলাকার শাহিনুর বেগম ও সুলতানা নামের দুই গৃহবধু জানান, দুই দিন বাড়ি রান্না হচ্ছে না। না খেয়েই দিন পাড় করছি।
৩২ নং ওয়ার্ডের মোগলেরবাগ ও লক্ষণপাড়া গ্রামের সাজু, আলামিনসহ বেশ কয়েকজন জানান, এমন বৃষ্টি তারা জীবনেও দেখেন নি। তাদের এলাকার রাস্তা-ঘাট তলিয়ে গেছে। যাতায়াত বন্ধ রয়েছে।
রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নারী কাউন্সিলর নাজমুন নাহার নাজমা জানান, সরেজমিন বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছি। এলাকাবাসীর সাথে কথা হয়েছে। পানিবন্দি পরিবারগুলোর সার্বিক খোঁজ খবর নিচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com