বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০২:৪৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রংপুর বিভাগের নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান- ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ রংপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন প্রার্থী আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা মর্যাদার লড়াই জাতীয় পার্টির বিরামপুর পুলিশ বক্স ও বিট পুলিশিং কার্যালয়ের উদ্বোধন নদীর ভাঙন প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম  দেখার কেউ নেই “স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তী পুরস্কার ২০২৩” পেল প্রাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট রংপুরে যুবদল নেতা নয়নের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রংপুর নগরীতে  বাড়িতে হামলা সরকারি জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ  বিরামপুরে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহে মা দিবস অনুষ্ঠিত

রংপুর মেডিকেল কলেজের ৪ লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজার টাকায় বিক্রি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৪৭২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।- রংপুর মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের নামে প্রায় ৪লক্ষাধিক টাকার গাছ নামমাত্র মূল্যে ৭৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে গাছ নিলামের মাধ্যমে যে ব্যক্তি কেটে নিয়ে যাচ্ছিল তার সশস্ত্র বাহিনী যুগান্তর ব্যুরো প্রধান, আমাদের প্রতিদিন সম্পাদক ও প্রকাশক এবং রংপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুব রহমান হাবুকে অপহরনের চেষ্টা চালায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকরা তাঁকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রংপুরের সংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ ঘটনায় কোতয়ালী থানা একটি অভিযোগ করা হয়েছে।
জানা গেছে, কলেজ ক্যাম্পাসে ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি অডিটরিয়াম নির্মানের জন্য দরপত্র আহবান করে রংপুর গণপূর্ত বিভাগ। এ জন্য স্থান নির্ধান করা হয় কলেজ ক্যাম্পাসের ইন্টার্নি হোস্টেল সংলগ্ন একটি বাগান ও মাঠ। ওই বাগানের ১১ প্রজাতির ২৬টি বিভিন্ন বয়সি জীবন্ত গাছ কাটার প্রক্রিয়া শুরু করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ জন্য গোপনে গাছ নিলামকারী ব্যাক্তির সাথে যোগশাজসে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও গণপূর্ত বিভাগের একজন উপ-সহকারী প্রকৌশলী কলেজ কর্তৃপক্ষ নামমাত্র মূল্যে নিলামের মাধ্যমে ২৬টি গাছ বিক্রি করে দেয়। জানা গেছে নিলামে ওই গাছ ক্রয় করেন কলেজের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীর এক ছেলে সে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে থাকে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়ের সরকারী বিধি অনুযায়ী হাপাতাল বা মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসের কোন গাছ কর্তন করতে হলে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিচালক সভাপতি হিসেবে কমিটির প্রধান হবেন। সদস্য সচিব হবেন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান, বিভাগীয় বন বিভাগের প্রতিনিধি, সিএমএমইউ এর প্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের একজন সদস্য। মোট পাঁচ সদস্যের কমিটি সভা করে গাছের মুল্য নির্ধারন করার পর প্রকাশে দরপত্রের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু বিপুল পরিমান টাকা আত্মসাত করার জন্য গোপনে কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষকদের দিয়ে একটি তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে নামমাত্র মূল্য নির্ধারন করে তা নিলামের নামে বিক্রি করে দেয়।
এর পর গত দু’দিন ধরে ওই গাছগুলো কেটে নিয়ে যাচ্ছিল নিলামে গাছ ক্রয়কারী ব্যক্তির লোকজন। এ ঘটনার খবর পেয়ে দৈনিক যুগান্তর রংপুর ব্যুরো প্রধান, আমাদের প্রতিদিনের সম্পাদক ও রংপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুব রহমান হাবু গতকাল রোববার দুপুরে ওই খবরের তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে যান কলেজ ক্যাম্পাসে। এর পর তিনি কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম নুরুন্নবী লাইজুর কাছে এ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে তাঁর কক্ষ থেকে বের হলে অফিসের করিডোড়ে অপেক্ষমান একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাঁকে হুমকীর মুখে সেখান থেকে অপহরন করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তিনি অধ্যক্ষের কক্ষে গিয়ে আশ্রয় নেন পরে তিনি ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন এবং সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ ও সাংবাদিকরা গিয়ে সেখান থেকে তাঁকে উদ্ধার করে আনেন। এ ঘটনায় কোতয়ালী থানা একটি অভিযোগ করা হয়েছে।
এ সম্পর্কে কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম নুরুন্নবী লাইজুর কাছে জানতে চাইলে তিনি স্বীকার করেন যে সরকারী বিধি অনুযায়ী জীবন্ত গাছগুলো কেটে ফেলার জন্য নিলাম করা হয়নি। পূর্বের নিলাম প্রক্রিয়া অনুসরন করা হয়েছে। কবে নিলাম করা হলো, কারা অংশ গ্রহণ করেছেন। এ সব বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ তৎক্ষনিক কিছু জানাতে পারেননি।
বন বিভাগের রংপুর সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা মোর্শারফ হোসেন জানান, গাছগুলোর মূল্য নির্ধারনের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের পত্র দিয়েছিল গত অগস্ট মাসের ৫ তারিখ। পরে মূল্য নির্ধারন করে কলেজ কর্তৃপক্ষ ২৭ আগস্ট অবিহিত করে পত্র দেয়া হয়। কিন্তু গাছ কাটার বিষয়ে তারা কোন কিছুই জানাননি। ওই কর্মকর্তা জানান, সেখানে ১১ প্রজাতির ২৬টি গাছ আছে, এর মধ্যে মেহগনি, ইউকিলিপটাস, অর্জুন, আম, পিতরাজ, জামসহ নানা প্রকার গাছ রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com