রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
জনগণের কাছে বিএনপি’র ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত-গোপাল এমপি দিনাজপুরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্যদের শ্রদ্ধা দিনাজপুর জেলা আ: লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ সফল করতে প্রস্তুতি সভা পার্বতীপুরে এড.মোস্তাফিজুর রহমান এম পি গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন গাইবান্ধায় ৮৩ হাজার ৫৭০ জন পাবেন বিনামূল্যে বীজ নেচে-গেয়ে দর্শক মাতালো সাঁওতাল তরুণীরা সাফল্য সাহত্যি সংস্কৃতি পরিবার বাংলাদশে এর লেখক পাঠক মলিনমলো গাইবান্ধা সদরে আশ্রয়ণের ঘর পেয়েও থাকেন ভাড়া বাসায় রংপুরে লেখক পাঠক মিলন মেলা ২০২২ সাদুল্লাপুরে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা ১২ হাজার ৪০ হেক্টর

রংপুর সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে রওশন পন্থী প্রার্থী মানিক

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০২২
  • ৪১ বার পঠিত

হারুন উর রশিদ।- রংপুর সিটি কর্পোরেশন (রসিক) নির্বাচনকে ঘিরে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টিতে দ্বন্দ্ব  চরম আকার ধারণ করেছে।

দলটির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের অনুসারীরা এখনো কিছুটা সরব রয়েছে। তারা গতকাল রবিবার নগরীতে জি.এম কাদেরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। ওই মিছিলে দলের মহানগর কমিটির সভাপতি ও বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক এস.এম ইয়াসির, জেলা কমিটির আহবায়ক আবুল মাসুদ চৌধুরী ও সদস্য সচিব আব্দুর রাজ্জাক দেখা য়ায়নি।
এদিকে দীর্ঘ সময়ের নীরতা ভেঙ্গে এখন সরব হয়েছে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদের অনুসারীরা। তারাও রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীর সন্ধানে মাঠে নেমেছে।

রওশন পন্থী জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় একটি বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, সাবেক রংপুর পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনের মেয়র,   জি.এম কাদের কর্তৃক অব্যাহতি প্রাপ্ত জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান  এ.কে.এম আব্দুর রউফ মানিককে সুদূর আমেরিকা থেকে জরুরি রংপুরে তলব করা হয়েছে। তাকেই জাতীয় পাটির রওশনপন্থী মেয়র প্রার্থী করা হচ্ছে। তিনিই দলের লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে মাঠে নামবেন। এটি নিশ্চিত করেছেন একেএম আব্দুর রউফ মানিক নিজেই।

তিনি জানিয়েছেন, ‘রওশন ম্যাডামের সাথে কথা বলেছেন, তিনিই দলের প্রার্থী হচ্ছেন এ জন্য আগামী ২৩ নভেম্বর বাংলাদেশে এসে নির্বাচনী প্রচারনায় মাঠে নামবেন…’। এর ফলে এবারের নির্বাচনে দলটির মেয়র প্রার্থী নিয়ে তৈরি হয়েছে জটিলতা।
এদিকে জাতীয় পার্টির দুর্গখ্যাত রংপুরে এমন  দ্বন্দ্বের সুযোগ কাজে লাগাতে চায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।

এ ছাড়া শনিবার দলটির জেলা কমিটির সাধারণ সভায় দলের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদকে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার কারনে দলটির নেতাকর্মীদের মাঝে তীব্র উত্তেজনা ও সাংগঠনিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে। তবে আওয়ামী লীগ মেয়র পদে কে প্রার্থী হবেন তা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটেনি। এখনোও প্রার্থী চুড়ান্ত না করলেও শীঘ্রই প্রার্থী চুড়ান্ত করবেন বলে আওয়ামী লীগের জেলা ও মহানগর এর দলীয় সূত্র জানিয়েছেন। তাদের প্রায় অর্ধডজন নেতা প্রার্থীর জন্য কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন। এদিকে স্থানীয় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বলছেন, রংপুর হচ্ছে জাতীয় পার্টির দুর্গ। এর ফলে রসিক নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে না। তাদের প্রার্থীর কাছে কেউ পাত্তাই পাবে না।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জাতীয় পার্টি এখন দুই ভাগে বিভক্ত হলেও রংপুরে জিএম কাদেরের অনুসারী বেশি মনে হলেও রবিবারের বিক্ষোভ মিছিলে স্থানীয় নেতৃত্বের শীর্ষ নেতাদের অনুপস্থিতি সাধারণ নেতাকর্মীদের হতাশ করেছে। এ কারণে নির্বাচনী লড়াইয়ের সমীকরণ নিয়ে কোন কিছুই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

শীঘ্রই মানিকের মেয়র পদে মনোনয়পত্র ক্রয় করা হবে বলে একটি নির্ভরযোগ্য সুত্র জানায়। এদিকে কাদের-রওশন দ্বন্দ্বের ফলে মোস্তফা ও মানিক দু’জনেই রসিক নির্বাচনে প্রার্থী হতে মরিয়া হয়ে  উঠেছেন।

ইতিমধ্যে বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে জিএম কাদেরের পক্ষে মনোনয়ন দিয়েছেন দলটির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু। মোস্তাফিজার গত নির্বাচনেও লাঙ্গলের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করে বিপুল ভোটে জয়ী হন।
এর বাইরেও মনোনয়ন পত্র নেওয়ার জন্য ঢাকায় রওশনপন্থী জাতীয় পার্টির পক্ষে মেয়র পদে নির্বাচনী লড়াইয়ে অংশ নিতে তদ্বির করছেন জাসদ ছাত্রীগের সাবেক ছাত্র নেতা ও বর্তমান জাসদের জেলা কমিটির এক নেতা ঢাকায় অবস্থান করছেন। তবে তাকে নিয়েও বির্তক থাকায় কিছুটা বিব্রত বোধ করছেন রওশানপন্থীরা । কারণ তিনি অবাঙালী ও হুন্ডি ব্যবসাসার সাথে জড়িত বলে গুঞ্জন রয়েছে। হঠাৎ করে তার আর্থিক উত্থান এর সূত্র খুঁছে সরকারের সংশ্লিষ্টরা।
রংপুর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা জানান, জিএম কাদেরের ওপর নিষেধাজ্ঞার নিষ্পত্তি না করে তা ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এখান থেকে স্পষ্ট হয় যে এর পেছনে সরকারের হাত রয়েছে। সাধারণ মানুষ ও জাতীয় পার্টির কাছে সরকারের রওশন এরশাদকে নিয়ে কলকাঠি নাড়ার বিষয়টি পরিষ্কার হয়েছে উঠেছে। এতে সরকারেরই ক্ষতি বলে জানান নেতা-কর্মীরা।
নির্বাচন কমিশন অফিস সূত্রে জানা গেছে, সিটি নির্বাচনের জন্য ২০ নভেম্বর মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু হয়েছে। নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর, ১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই এবং ৮ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ডিসেম্বরের ২৭ তারিখ।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com