শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৩৪ অপরাহ্ন

সাময়িক বরখাস্ত এসআই আকবর হোসেন ভূইয়া গ্রেফতার

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৭৩ বার পঠিত
এসআই আকবর ভূইয়া’র পূর্বের ও গ্রেফতারের পরের ছবি

বজ্রকথা ডেক্স।-সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে যুবক রায়হান আহমদের মৃত্যুর ২৯ দিন পর ওই হত্যা মামলায় প্রধান অভিযুক্ত বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ (সাময়িক বরখাস্ত) এসআই আকবর হোসেন ভূইয়া গ্রেফতার হয়েছেন। গত ৯ অক্টোবর সোমবার সকাল ৯টার দিকে ভারত পালিয়ে যাওয়ার সময় সাদা পোশাকে পুলিশ কানাইঘাটের ডোনা সীমান্ত এলাকা থেকে আকবরকে গ্রেফতার করে। পুলিশ জানায়, ভারতে পালানোর সময় সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার ল²ীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের ডোনা সীমান্ত এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে বিজিবি ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, ভারতীয় খাসিয়ারা আকবরকে আটক করে এক যুবকের মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশে সোপর্দ করেছে।
এদিকে বরখাস্ত এসআই আকবর হোসেন ভূইয়া গ্রেফতার হওয়ার পর রায়হানের পরিবারের পক্ষ থেকে দ্রæত বিচারকার্য সম্পন্ন করে আকবরসহ হত্যাকান্ডে জড়িত সবার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। গ্রেফতারের পর এসআই আকবরকে সন্ধ্যা ৫টা ৫৩ মিনিটে কড়া নিরাপত্তায় নিয়ে আসা হয় পুলিশ সুপার কার্যালয়ে। সেখানে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, রায়হান হত্যাকান্ডের তিন দিন পর থেকে জেলা পুলিশ এসআই আকবরসহ জড়িত অন্যদের গ্রেফতারে তৎপরতা শুরু করে। সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হয়। জিজ্ঞসাবাদ করা হয় অনেককে। সব থানা পুলিশকে সতর্ক রাখা হয়।
জানা যায় গত রবিবার গোপন সূত্র থেকে পুলিশ খবর পায় যে আকবর সীমান্ত দিয়ে ভারত পালিয়ে যেতে পারেন। এর পর জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট থানার ওসিকে বিশেষ নজরদারি বৃদ্ধি করে একই সঙ্গে কানাইঘাট সীমান্ত এলাকায় সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য গত ১১ অক্টোবর ভোররাতে বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তির এক ঘণ্টা পর মারা যান নগরীর নেহারীপাড়ার বাসিন্দা রায়হান আহমেদ (৩৩)।এ ঘটনায় পরদিন পুলিশ ফাঁড়িতে হত্যার বিষয় উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন রায়হানের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার।প্রাথমিকভাবে, ছিনতাইকালে পিটুনিতে মৃত্যুর কথা বলা হলেও,পরে পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে একটি প্রাথমিক তদন্ত কমিটি গঠন করে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ।তদন্তে ওই ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্তদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে, ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া, কনস্টেবল হারুনুর রশীদ, কনস্টেবল তৌওহিদ মিয়া ও কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com