মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০২:১৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
১১ বছরেরও শেষ হয়নি সুন্দরগঞ্জ চার পুলিশ হত্যার বিচারিক কার্যক্রম  মেহেদী শান্তা জুটির ৪ বই পাঠকপ্রিয় হয়েছে গাইবান্ধা-৩ আসনের সাবেক এমপি মোখলেছুর মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক গাইবান্ধায় সড়ক দূর্ঘটনায় দুই যুবক নিহত শমসেরনগর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার চায় শিক্ষার্থীরা দিনাজপুর বৃদ্ধাশ্রমে কেক কেটে সময়ের আলোর ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন আধিপত্য বিস্তারে মোটর মালিক সমিতির লিপনকে সরিয়ে দিতে গুলিবর্ষণ: গ্রেফতার ৪ রংপুরে জাতীয় বাজেট প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট প্রত্যাশা শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত উচ্ছেদে অভিযানের পর ধ্বংসাবশেষ অপসারণ করেছে পৌরসভা  চিলমারী কল্যাণ সমিতির কমিটি গঠন

পীরগঞ্জে হাত-পা বেঁধে রেখে ঘর-বাড়ী ভাংচুর

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৯ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৯৫ বার পঠিত

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি।- রংপুরের পীরগঞ্জে এক শিক্ষিকার বাবাকে হাত-পা বেঁধে রেখে রাস্তা ফেলে তার নির্মানাধীন আধাপাকা দোকান ঘর প্রতিপক্ষ আব্দুর রশিদগং কর্তৃক রাতের আধারে ভাংচুর করার ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে পীরগঞ্জ থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ভাংচুরকারীরা সটকে পড়ে। গত বুধবার গভীর রাতে ঘোলা বোর্ডের ঘর নামক স্থানে ওই ঘটনা ঘটে। শিক্ষিকার পরিবারিক সুত্রে জানাগেছে, ছফের উদ্দিনের এক ছেলে ছাবাতুল্যা ও ২ মেয়ে বছিরন ও রুপজানের কাছ থেকে তাদের প্রাপ্ত অংশ দলিল করে নেন বর্ণিত ঘোলা গ্রামের মোজাম্মেল হোসেন। তিনি ছফের উদ্দিনের সিএস ও এসএ রেকর্ড মুলে ঘোলা গ্রামে ৯১ নং খতিয়ানে ২৩১, ২২৫ ও ২২৮ পৃথক এই ৩ দাগে ৭০ শতাংশ জমির মালিক। ছফের ও তার স্ত্রী বিবিজান নেছা মারা গেলে ওয়ারিশ সুত্রে তাঁর ৩ ছেলে প্রত্যেকে সাড়ে ১৭ শতাংশ এবং ২ মেয়ে প্রত্যেকে পোনে ৯ শতাংশ করে জমির মালিকানা প্রাপ্ত হয়। ওই খতিয়ানের ২৩১ দাগে ৪০ শতাংশ জমির মধ্য থেকে ছফের উদ্দিনের ২ ছেলে ছলিম উদ্দিন ও তোফাজ্জল হোসেন বিগত ১৯৬০ সালের ২৯ শে জুন ৩৩ শতাংশ জমি রামনাথপুর ইউনিয়ন কাউন্সিলের নামে রেজি: মুলে লিখে দেন। যার দলিল নং ৭৪১৫ । বর্নিত খতিয়ানে ওই ২ ভাইএর জমি থাকে মাত্র ২ শতাংশ । উক্ত খতিয়ানে ১ শতাংশ জমির মালিক হওয়া সত্বেও দুর্ভিসন্ধিমুলক ২০০৬ সালের ৬ আগষ্ট ৫০৯৭ নং দলিল মুলে ছফের উদ্দিনের ছেলে ছলিম উদ্দিন তার মেয়ে সাজেদা বেগমের নামে বর্নিত ৯১ খতিয়ানের ২৩১ ও ২২৮ দাগে ২০ শতাংশ জমি রেজি:করে দেন । জমির ভেজাল বুঝতে পেরে সাজেদা বেগম উক্ত জমি থেকে ২২৮ দাগে পোনে ১০ শতাংশ জমি বিক্রি করেন এলাকার হিরা, শিউলী ও আব্দুর রশিদের নিকট ৩০-০৯-২০১৮ ইং তারিখে ৮৩৫২ /১৮ নং দলিল মুলে বিক্রি দেন। কিন্তু ওই জমির উপর কোর্টে মামলা মোকদ্দমাসহ বড় মহাজিদপুর গ্রামের আব্দুল বারি ফকিরের ছেলে আব্দুর রশিদ মালিকানা দাবী করে ঘটনার দিন বুধবার গভীর রাতে স্থানীয় ভাড়াটে বাহিনী হিরু, মামুন, রাজ্জাক, রাশেদ, তানজিল, আমিনুল ইসলামসহ ৩০/৪০জন লোক লাঠি সোডা হাতে শিক্ষিকা মাহমুদা বেগমের আধাপাকা দোকান ঘর ভেঙ্গে দেয়। এ সময় শিক্ষিকার বাবা মোজাম্মেল হককে আব্দুর রশিদগংরা ঘর থেকে বের করে হাত-পা বেঁধে ফেলে রাখে। টহল পুলিশের পীরগঞ্জ থানার এস.আই জামিল মিয়া জানান, মাহমুদার বাবা মোজাম্মেল হককে হাত-পা বেঁধে রাস্তায় ফেলে রাখা অবস্থায় উদ্ধার করি। এর আগে পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে ভাংচুরকারীরা দ্রæত সটকে পড়ে। এদিকে গত শনিবার মাহমুদা বেগম পীরগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করলে গতকাল রবিবার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই ইসমাইল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com