বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

নির্বাচনে জয় পেতে মরিয়া রংপুরের তিন ইউপির আ.লীগ প্রার্থীরা

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১০৫ বার পঠিত

রংপুর প্রতিনিধি।- রংপুর সদর উপজেলার হরিদেবপুর, চন্দনপাট ও সদ্যপুষ্করিনী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ অক্টোবর। এই নির্বাচনে নিজ দলের প্রার্থীর জয় পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। শুরু থেকেই জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জোটবদ্ধ হয়ে ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। তারা নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন।
আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও দলী প্রধান শেখ হাসিনা যখন তিন প্রার্থীর হাতে দলীয় মনোনয়ন তুলে দিয়েছেন। তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মান রক্ষার জন্য ভোটে জয়লাভ ছাড়া বিকল্প কোন পথ নেই। যে কোন মূল্যে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রংপুর সদরের হরিদেবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা একরামুল হক দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। তিনি হরিদেবপুরের ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ড থেকে একক প্রাথী। নির্বাচনী প্রচারণায় বেশী সময় দেয়ায় তিনি অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দুই এক দিনের মধ্যে আবার ভোটের মাঠে ফিরবেন তিনি। তাঁর পক্ষে ভোটের মাঠে নেমেছে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তারা ভোট সমন্বয়ের চেষ্ঠা করছেন তুমুল ভাবে।
হরিদেবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম বলেন, আমরা ভোটের মাঠে শক্ত ভাবে আছি। আশা করি জনগণ উন্নয়ন চাইবে। উন্নয়ন চাইলে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে ভোট দেবে। বিজয় আমাদেরই হবে।
চন্দনপাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। নৌকা প্রতীক পেয়ে দিনরাত ভুলে গেছেন আমিনুর রহমান। প্রতিদিন ১২ থেকে ১৫টি পথ সভায় দলীয় নেতাকর্মীসহ উপস্থিত থেকে ভোট ভিক্ষা চাইছেন।
চন্দনপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সনজিৎ কুমার নাড়– বলেন, আমরা ভোটের মাঠে ব্যাপক ভালো অবস্থানে রয়েছি। আমাদের কয়েকটি রিজার্ভ ভোট ব্যাংক রয়েছে। তাই আমরা বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।
সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়ন শাখার সভাপতি মকছেদুর রহমান দুলু ব্যাপারী। তাঁর হয়ে ভোটের মাঠে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন উপজেলা পরিষদের তিনবার নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম প্রামানিক।
চেয়ারম্যান প্রার্থী দুলু ব্যাপারী বলেন, আমি মকছেদুর রহমান দুলু, নামটি আমার পিতার দেয়া। দীর্ঘদিন ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার কারণে এই সদ্যপুস্করিনীর জনগণ আমার নামের সাথে ব্যাপারী যুক্ত করে দিয়েছে। তাই আমি দুলু ব্যাপারী হয়ে উঠেছি। এবার নির্বাচনে সরকার দলীয় একজন প্রার্থী হিসেবে, নৌকা মার্কার প্রার্থী হিসেবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্মী হিসেবে জনগণ আমাকেই বেছে নেবে বলে বিশ্বাস রাখি।
তিনি বলেন, আমি সরল সোজা মানুষ। কোন রকম কালো দাগ আমার মনের মধ্যে নেই। সরকারী বরাদ্দ লুট কিংবা চুরি করার ইচ্ছে আমার নেই। দীর্ঘদিন সুনামের সাথে যে ভাবে ব্যবসা করেছি। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আমার জীবনের অর্জিত সেই সুনাম নষ্ট হতে দেবো না। সততা, ন্যায় নিষ্ঠার সাথে কাজ করে সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়নকে আলোকিত, কল্যাণকর ইউনিয়নে পরিণত করারই হবে আমার প্রধান কাজ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com