বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫১ পূর্বাহ্ন

পার্বতীপুর পৌরসভার নির্বাচন সমাচার

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪ বার পঠিত

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) থেকে এম এ আলম বাবলু।- দীর্ঘ ১ যুগ পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পার্বতীপুর পৌরসভার নির্বাচন, তফশীল ঘোষনা না হলেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা সুকৌশলে মাঠে নেমে পড়েছেন। দোয়া ও আশীর্বাদ নিচ্ছেন মানুষের। সীমানা জটিলতার কারনে দীর্ঘ ১ যুগেরও বেশী সময় ধরে পার্বতীপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হলেও বর্তমানে সীমানা জটিলতা অবসান হওয়ায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এই পৌরসভার নির্বাচন।

দীর্ঘদিন পর নির্বাচন হওয়ার সুবাদে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা সুকৌশলে মাঠে নেমে ভোটারদের কাছে দোয়া ও আশীর্বাদ প্রার্থনা করছেন। সেই সাথে পৌরসভার নাগরিকেরাও দীর্ঘদিন পরে ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন বলে তাদের আগ্রহের শেষ নাই।
জানা গেছে, রেলওয়ে জংশন খ্যাত দিনাজপুরের পার্বতীপুর পৌরসভার আগামী নির্বাচনে মেয়র পদে ক্ষমতাশীন দল আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হচ্ছেন পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ আমজাদ হোসেন। স্থানীয় ভাবে তাকে মেয়র প্রার্থী করতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অতি সম্প্রতি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া শেষে স্থানীয় অডিটরিয়ামে এক বর্ধিত সভায় মিলিত হন পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের সভাপতি ও সম্পাদক বৃন্দ। অনির্ধারিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব হাফিজুল ইসলাম প্রামানিক। উপজেলা আওয়ামীলীগের আমন্ত্রনে সভায় অংশ নেন দিনাজপুর-৫ (পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক মন্ত্রী প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ও তাঁর দুই কন্যা মুক্তা ও শিমলা। সভায় অংশ গ্রহনকারী প্রতিটি সদস্য মোঃ আমজাদ হোসেনকে পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী করার সম্মতি দিলে তা সর্বসম্মতীক্রমে গৃহীত হয়। পৌরসভা নির্বাচনের তফশীল ঘোষনার সাথে সাথে কেন্দ্র থেকে প্রার্থীর নাম চাওয়া মাত্র মোঃ আমজাদ হোসেনের নাম পাঠানো হবে।
বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে জড়িত মোঃ আমজাদ হোসেন এর আগেও পৌরসভার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বিপুল ভোট পেয়েও রহস্যজনক ভাবে মাত্র ২৯ ভোটে পরাজিত হয়েছিলেন। সে ক্ষোভ তার আজও রয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন বিজয়ী হওয়ার পরেও ষড়যন্ত্র করে আমাকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছিল। দুঃখ ক্ষোভে এরপর আর কোন নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হয়নি। তিনি জনগনের পাশে থেকে নিরলস ভাবে কাজ করতে চান। তিনি চান পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়ে সমস্যা সমাধানের মাধ্যমে নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি সহ এই পৌরসভা কে একটি আধুনিক মানের পৌরসভায় রুপান্তরিত করতে।
রেলওয়ে জংশনের বদৌলতে ১৯৭২ ইং সালে গড়ে উঠা পার্বতীপুর পৌরসভা এখন প্রথম শ্রেণির মর্যাদা সম্পন্ন একটি পৌরসভা। ৯ টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এই পৌরসভার সীমানা বৃদ্ধি করা হলেও ওয়ার্ডের সংখ্যা বাড়ানো হয়নি। সম্প্রতি এই পৌরসভার নির্বাচিত পৌর পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষনা করে প্রশাসক নিয়োগ করা হয়। বর্তমানে পৌর প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ ইসমাঈল। নির্বাচন দপ্তর সুত্রে জানা গেছে, খুব শীঘ্রই পার্বতীপুর পৌরসভার নির্বাচনী তফশীল ঘোষনা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com