শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পীরগঞ্জ উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিক ও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল সরঞ্জাম বিতরণ রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত পটুয়াখালী পরিদর্শনে গেছেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ মোস্তফা মহসিন সুন্দরগঞ্জে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত দিনাজপুর সার্কেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষা সম্পন্ন দিনাজপুরে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপনে এ্যাডভোকেসী দিনাজপুরে বিআরটিএ’র  রিফ্রেসার প্রশিক্ষণ সম্পন্ন রংপুরে উপজেলা  চেয়ারম্যান প্রার্থীর উপর হামলার অভিযোগ দিনাজপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক রচনা ও বির্তক প্রতিযোগীতা   রংপুর বিভাগের নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান- ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ

বদরগঞ্জে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৩ মে, ২০২৩
  • ১৬৬ বার পঠিত

রংপুর থেকে সোহেল রশিদ।- রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার পল্লীতে ইউপি সদস্য ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা অভিযোগে মামলা হয়েছে।

রবিবার বদরগঞ্জ থানায় এই মামলা করেন ভুক্তভোগীর মা। তবে ইউপি সদস্য অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ইউনুস আলী (৩৫) উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য। তিনি স্থানীয় বীরমুক্তিযোদ্ধা মমিন চৌধুরী অটিজম প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বদরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান হাবিব জানান, শনিবার বিকেল তিনটায় মেয়েটির বাড়িতে যান ইউপি সদস্য ইউনুছ আলী। এ সময় মেয়েটির বাবা-মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে ইউনুছ আলী মেয়েটিকে ঘরে একা পেয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ সময় তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসলে ইউপি সদস্য কৌশলে পালিয়ে যান। ইউনুছ আলী ও মেয়েটি একই গ্রামের বাসিন্দা।
ভুক্তভোগীর মা জানান, আমার স্বামী রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। ঘটনার সময় স্বামী বাইরে কাজে ছিলেন। আর আমি ছিলাম বোনের বাড়িতে। মেয়েটি বাড়িতে একা ছিল। এই সুযোগে ইউপি সদস্য ইউনুস আলী আমার বাড়িতে ঢুকে মেয়েটিকে ধর্ষণ চেষ্টা চালায়। আমি ওর (ইউপি সদস্য) কঠিন শাস্তি চাই।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইউপি সদস্য ইউনুস আলী। তার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আমি এলাকায় ডিসের ব্যবসা করি। ঘটনার দিন মেয়েটির বাড়িতে গিয়েছিলাম টেলিভিশনের চ্যানেল ঠিক করার জন্য। আমি তার ঘরে ১ থেকে ২২টি চ্যানেল পরিবর্তন করে দ্রুত  ঘর থেকে বেরিয়ে আসি। ওই সময়ে আমার সাথে মেয়ের এক চাচীও সঙ্গে ছিলেন।
ওই ইউপি সদস্যর দাবি, মেয়েটির মায়ের কাছে আমি ৪ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলাম। কিন্তু অভাবের কারণে টাকাটা দিতে পারিনি। এতে মানুষের বুদ্ধিতে প্ররোচিত হয়ে মেয়েটির মা আমার বিরুদ্ধে থানায় কুরুচিপূর্ণ অভিযোগ করেছেন।
এদিকে বদরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান বলেন, শনিবার সন্ধ্যার পর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা মামলা দায়ের করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে ওই ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কিছু জায়গায় সাঁড়াশি অভিযান চালানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com