রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:৩০ অপরাহ্ন

বিরামপুর উপজেলার  দিওড় ইউনিয়নে মানবতার ফেরিওয়ালা আব্দুল মালেক মন্ডল!

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০২০
  • ১৯৩ বার পঠিত

নবাবগঞ্জ( দিনাজপুর) থেকে সৈয়দ হারুনুর রশীদ।- দিনাজপুর বিরামপুর উপজেলাধীন ৪ নং-দিওড় ইউনিয়ন এর বৈদাহার গ্রামের সুযোগ্য ব্যক্তিত্ব-আঃ মালেক মন্ডল সূর্য্যের আলোর মত আলো দিয়ে যাচ্ছে ৪নং দিওড় ইউনিয়ন বাসিকে।

দিওড় ইউনিয়ন বাসির  উন্নয়নের কান্ডারি হয়ে আসছেন এবং নিজ তহবিল থেকে সামর্থ অনুযায়ী উন্নয়নমুলক কাজ সহ গরীবের জন্য সাহায্য করার যে প্রবনতা সকলের কাছে সত্যিই তিনি তুলনাহিন।

এই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে তিনি জীবনের মায়া না করে গরীব দুস্থ মানুষের কল্যাণে নিজেকে  বিলিয়ে দিয়েছে।প্রাণঘাতী মহামারী করোনায় কালে নিজ তহবিল থেকে ১১ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়ে আসছেন বলপ তিনি জানান। মনোমুগ্ধকর দৃশ্য গুলি অস্বীকার করবেন  কেউ। দিওড় ইউনিয়ন বাসি এতটা কৃতজ্ঞ ও শ্রদ্ধা ভক্তির সঙ্গে জনায়  সারাজীবন এবং বিপদের সময় আসল বন্ধুর পরিচয়  প্রমাণ করে দিয়েছেন-আঃমালেক মন্ডল!

এলাকার অসংখ্য মানুষ জানায় প্রাকৃতিক দূর্যোগ যখন জনজীবন এর উপর প্রভাব ফেলে তখন  নিজেকে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ না রেখে নিজে ছুটে গিয়েছেন তাদের সাহায্য করার জন্য। ংকোন অসহায় দুঃস্থ্য ব্যক্তি সাহায্য চাইলে কখনও তিনি তাকে খালি হাতে ফেরায়নি।

নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য করছেন নিজ তহবিল থেকে,এমনএকজন মহান ব্যক্তির শুকরিয়া জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই।মালেক মন্ডল একজন মহান ব্যক্তি এতে কোন সন্দেহ নেই ওনার সাহায্য দান করার সদিচ্ছা  চলমান সেই সকল অসহায় কর্মহীন ও করোনা পরিস্থিতির সংকট মুহূর্তে সর্বক্ষনিক তিনি এখনো বিরাজমান ভুক্ত ভোগীদের সাহার্যার্থে।

মুঠোফোনে কেউ জানালেই সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যান সেই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের নিকট এবং নিজ তহবিল হতে সাধ্যানুযায়ী সাহায্য নগদ কিছু অর্থ দেওয়ার পাশাপাশি মোবাইল নম্বর দিয়ে বলেন আরো যদি কোন সহযোগিতা লাগে আমাকে জানাবেন। তারই ধারাবাহিকতায় চলছে চার নাম্বার দিওড় ইউনিয়নে রাস্তা সংস্কার ও মাক্স বিতরণ।দিওড় ইউনিয়ন এর সর্বস্তরের জনসাধারণ এই আব্দুল মালেক মন্ডল কে চেয়ারম্যান পদে দেখতে চায়। পরিশেষে সকলের কাছে দোয়া চাইলেন মালেক মন্ডল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com