সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার প্রতিবন্ধী ধর্ষক আটক সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ প্রয়োজন-মনোরঞ্জন শীল দিনাজপুরে মৎস্যজীবী লীগ ৪নং শেখপুরা ইউনিয়ন কমিটি গঠন জনগণের কাছে বিএনপি’র ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত-গোপাল এমপি দিনাজপুরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্যদের শ্রদ্ধা দিনাজপুর জেলা আ: লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ সফল করতে প্রস্তুতি সভা পার্বতীপুরে এড.মোস্তাফিজুর রহমান এম পি গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন গাইবান্ধায় ৮৩ হাজার ৫৭০ জন পাবেন বিনামূল্যে বীজ নেচে-গেয়ে দর্শক মাতালো সাঁওতাল তরুণীরা সাফল্য সাহত্যি সংস্কৃতি পরিবার বাংলাদশে এর লেখক পাঠক মিলনমেলা

রংপুরে দলীয় কোন্দল চরমে, করোনা ও বন্যায় মানুষের পাশে নেই বিএনপি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০
  • ১৭১ বার পঠিত

রংপুর প্রতিনিধি।- রংপুরে দলীয় কোন্দলে বিএনপির রাজনীতি এখন দুটি ভাগে বিভক্ত। কেন্দ্রীয় কর্মসূচিগুলো পালন হলেও রংপুর বিএনপির শীর্ষ নেতার দলাদলিতে স্থানীয়ভাবে তাদের কোনো রাজনৈতিক তৎপরতা বর্তমানে চোখে পড়ে না। আবার অনেক সময় দলীয় কার্যালয় ভিত্তিক কিছু কর্মসূচী পালন করতে দেখা গেলেও করোনার কারণে তা একেবারেই বন্ধ।
এদিকে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে রংপুর মহানগর ও জেলা বিএনপি এবং অঙ্গসংগঠনের পক্ষে ত্রাণ বিতরণ করা হলেও তা একেবারেই অপ্রতুল। নগরীসহ জেলার অন্যান্য উপজেলায় ত্রাণ বিতরণ উল্লেখযোগ্যভাবে করা হয়নি। অনেকেই এটাকে ফটোসেশন হিসাবে দেখছেন। তবে জেলার পীরগঞ্জ উপজেলা বেশ কিছু ত্রাণ দিতে দেখা গেছে দলটির জেলা সভাপতি সাইফুল ইসলামকে। এছাড়াও সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাড়াতে দেখা যায়নি বিএনপি নেতাকর্মীদের।
রংপুর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা জানান, রংপুর মহানগর ও জেলার নেতাকর্মীরা মামলায় জর্জরিত। বিভিন্ন মামলায় নেতাকর্মীরা জেলে যাওয়ার পর নেতারা তাদের আর খোঁজ নেন না। কোন প্রকার সহযোগিতা করেন না। পরিবার থেকে জামিনের ব্যবস্থা করতে হয়। দলের অনেক আইনজীবী টাকা ছাড়া কাজ করেন না। এছাড়াও চলমান করোনা মহামারিতে নেতাকর্মীরা দলীয়ভাবে সহযোগিতা পাননি। এতে করে এসব নেতাকর্মীদের ক্ষোভ চরম আকার ধারণ করেছে।
দলীয় সুত্র জানায়, রংপুর মহানগর বিএনপি সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজফফর হোসেন মৃত্যুর একবছর পরও কাউকে দায়িত্ব দেয়া হয়নি। কে হবেন রংপুর মহানগরের সভাপতি এই নিয়ে চলছে গ্রুপিং লবিং। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও দলীয় কোন্দল নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এছাড়াও পুর্বের দলীয় কোন্দলতো রয়েছে। সেই সব কারণে রংপুরের জেলা ও মহানগর বিএনপি এবং যুবদল, ছাত্রদল, কৃষকদল, স্বেচ্ছাসেবক দল বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতারা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। দলীয় কোন্দলের কারণে মহানগর ও জেলা বিএনপি এখনো পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করতে পারেনি। এছাড়াও জেলা ছাত্রদলহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনেরও একই অবস্থা। এতে করে বিপাকে পড়েছেন তৃণমুলের ত্যাগীরা নেতাকর্মীরা। অনেকেই এই কোন্দলের বলি হয়ে রাজনীতি থেকে বিদায় নিয়েছেন। অনেকেই আবার নিষ্কিয় হয়ে গেছেন। ফলে দিন দিন ক্ষোভ বাড়ছে রংপুর বিএনপির রাজনীতিতে।
রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু জানান, রংপুর মহানগর বিএনপিতে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকতে পারে। তবে কোন বিরোধ-গ্রুপিং নেই। আমরা সবাই একসাথে গণতন্ত্র পুর্নরুদ্ধারের জন্য লড়ছি।
এব্যাপারে রংপুর জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম জানান, রংপুর জেলা বিএনপিতে কোনো ভেদাভেদ নেই। সবাই এক। অপপ্রচার চালিয়ে রংপুরে বিএনপিকে দাবিয়ে রাখার চেষ্টা চলছে। দলে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকতে পারে। কিন্তু কোন বিরোধ নেই।
রংপুর মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সামছুজামান সামু জানান, রংপুরে বিএনপি এখন অপপ্রচারের শিকার হচ্ছে। নেতাকর্মীরা সাংগঠনিক কর্মকান্ডে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে পারছে না মামলাসহ বিভিন্ন কারনে। তবে মহানগর বিএনপিতে কোনো গ্রুপিং নেই।
প্রসঙ্গত: গত ২০১৪ থেকেই কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা দ্ইু ভাগে বিভক্ত হয়েছেন। পরে ২০১৭ সালে রংপুর জেলা ও মহনাগর বিএনপির কমিটি ঘোষণা- পদপদবীকে কেন্দ্র করে দলীয় বিরোধ মাথা চাড়া দেয়। যা এখনও চলমান রয়েছে। এই সব কারণে বিএনপিসহ অঙ্গ দলের মধ্যে কোন্দল দেখা দিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com