1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
সোমবার, ১১ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
নবাবগঞ্জে গণহত্যা দিবস পালিত নবাবগঞ্জে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উদযাপিত ঘোড়াঘাটে ৩৯টি পূজা মন্ডপে সরকারী অনুদানের চাল বিতরণের উদ্বোধন ঘোড়াঘাট পৌরসভা নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল দিনাজপুরে আশ্চর্যজনক খেলনা সম্বলিত “টয় কিংডম” শো-রূমের উদ্বোধন বিভেদ সৃষ্টির হাতিয়ার ধর্মান্ধতা -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বগুড়ার শেরপুরে ট্রাকের কেবিন থেকে উদ্ধার লাশের পরিচয় মিলেছে বিদেশি সংস্কৃতির আগ্রাসন থেকে বেরিয়ে আসতে হবে  -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি ফুলবাড়ী পৌরসভার সভাকক্ষে এমজিএসপির একদিনের ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে প্রতিবন্ধী অসহায় পরিবারকে বাড়ি উপহার দিলেন ইন্ডাট্রিয়াল শাইলা সাবরিন

হাটের খাস খতিয়ানের জমি চেয়ারম্যানের দখলে

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৫ বার পঠিত

বজ্রকথা সংবাদদাতা।- পীরগঞ্জ উপজেলার কুমেদপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোশফাক হোসেন খান চৌধুরী ফুয়াদ রসুলপুরে হাটের খাস জমিতে নির্মিত ৬টি দোকানঘর উচ্ছেদের পর হাটের মূল্যবান ৩শতাংশ জমি দখলে নিয়ে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী সম্প্রতি রংপুর জেলার ডিসি বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
জানা গেছে, প্রায় ৫০ বছর আগে উপজেলার মরারপাড়া গ্রামের আফজাল হোসেন (৭০) রসুলপুরহাটের মধ্যে ৮৫১ দাগে ৩ শতক জমিতে ৬ টি আধাপাকা দোকান নির্মাণ করেন। তিনি ১৯৭২ সাল থেকে ৪ টি দোকান ঘর ভাড়া দেন এবং ২ টি দোকান ঘরে নিজে ব্যবসা করে আসছেন জমিটি রসুলপুরের মোহাম্মদ হোসেন খান চৌধুরীর হলেও তার ১’শ বিঘার উপর জমি থাকায় রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ ৯৮/৭২ ক্ষমতাবলে সরকার জমিটি ১ নং খাস খতিয়ানে অন্তর্ভুক্ত করে নেয়ার পর জমিটি হাটপ্লটে নেয়া হয়। জমিটি খাস খতিয়ানে অন্তুর্ভুক্ত হলেও মোহাম্মদ হোসেন খানের ছেলে কুমেদপুর ইউপির চেয়ারম্যান মোশফাক হোসেন খান চৌধুরী ফুয়াদ জমিটির দোকানঘর উচ্ছেদ করে ওই জমিতে জমিতে তার নামের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেন। পাশাপাশি তিনি কুমেদপুর ইউনিয়ন উপসহকারী ভুমি কর্মকর্তা (তহশিলদার) কে ম্যানেজ করে খাজনাও দেন। অপরদিকে জমিটি লীজ নেয়ার জন্য ক্ষতিগ্রস্থ আফজাল হোসেন রংপুরের জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছেন। ক্ষতিগ্রস্থ আফজাল হোসেন জানিয়েছেন, চেয়ারম্যানের বাবার জমি হলেও তাদের ১’শ বিঘার উপরে জমি থাকায় হাটের ৩ শতক জমি খাস খতিয়ানে গেছে। আমি ওই জমিতে প্রায় ৫০ বছর ধরে ব্যবসা করে আসছি। আর চেয়ারম্যান সোমবার দিনের বেলা লোকজন সাথে নিয়ে এসে আমার দোকানগুলো ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়ায় দোকানের বহু মালামাল লুট হয়েছে। চেয়ারম্যান ফুয়াদ চৌধুরী বলেন, জমিটি আমাদের ছিল। খাজনাও দিয়েছি। জমিটিতে কয়েকটি দোকান ছিল। তাদেরকে দোকান তুলে নিতে একদিনের নোটিশ দিয়েছি। তারা না শোনায় আমি দোকানগুলো ভেঙ্গে দিয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com