শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পীরগঞ্জ উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিক ও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল সরঞ্জাম বিতরণ রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত পটুয়াখালী পরিদর্শনে গেছেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ মোস্তফা মহসিন সুন্দরগঞ্জে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত দিনাজপুর সার্কেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষা সম্পন্ন দিনাজপুরে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপনে এ্যাডভোকেসী দিনাজপুরে বিআরটিএ’র  রিফ্রেসার প্রশিক্ষণ সম্পন্ন রংপুরে উপজেলা  চেয়ারম্যান প্রার্থীর উপর হামলার অভিযোগ দিনাজপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক রচনা ও বির্তক প্রতিযোগীতা   রংপুর বিভাগের নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান- ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ

কাউনিয়ায় সেভেন স্টার বাহিনীর হামলা নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৬২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।- একাধিক মামলার জের ধরে প্রতিপক্ষ ফের নিরপরাধ পরিবারের উপর লোমহর্ষক হামলা চালিয়েছে। এবার খোদ হামলায় জড়িত আসামীদের রক্ষার মিশনে নামার অভিযোগও উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে । ঘটনাটি ঘটেছে রংপুরের কাউনিয়ার শিবু কুঠিপাড়া এলাকায়।
মামলা ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, কাউনিয়া উপজেলার শিবু কুঠিপাড়া এলাকার সেভেন স্টার নয়ন বাহিনীর বিরুদ্ধে ফের হামলা-লুটপাটের অগ্নি সংযোগ অভিযোগ উঠেছে। গত ১৮ অক্টোবর দিন-দুপুরে পূর্ব পরিকল্পনায় নয়ন ও তার ভাই মিলনসহ অপর সন্ত্রাসীরা একই এলাকার মোসলেম উদ্দিনের বাড়িতে হানা দেয়। এসময় সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা মোসলেম উদ্দিন পরিবারকে উদ্দেশ্য করে অশালীন কথাবার্তা বলতে বলতে বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এসময় মোসলেমসহ তার স্ত্রী নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে লুকিয়ে থাকে। সন্ত্রাসীরা এসময় ঘরের দরজা বন্ধ ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে হত্যার উদ্দেশে মোসলেম উদ্দিনকে এলোপাতাড়ী কোপায়। এতে মোসলেমের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। হামলার দৃশ্য দেখে প্রাণ রক্ষর ভয়ে মোসলেমের স্ত্রী খাটের নিচে লুকায়। তখন ছেলে মতিউর মা-বাবাকে বাঁচানোর জন্য এগিয়ে আসলে মতিউরের উপরও হামলা চালায় দুর্ধর্ষ ক্যাডার বাহিনীর সদস্যরা। মোসলেম ও তার ছেলে মতিউর রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে মৃত ভেবে ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় ঘরে থাকা জমি কেনার নগদ ৩ লাখ টাকা হামলাকারিরা হাতিয়ে নেয়। এবং প্রায় দেড়লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। হামলার তা-বনীলা চালানোর সময় হামলাকারিরা টিনের গোয়াল ঘরে আগুন জ¦ালিয়ে দেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। হামলাকারিরা চলে যাওয়ার পর প্রতিবেশীরা ছুটে এসে আগুন নেভাতে থাকে। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে এ্যাম্বুলেন্সযোগে আহতদের উদ্ধার করে থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে মোসলেমের অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রংপুর মেডিকেলে স্থানান্তর করে। এ ঘটনায় কাউনিয়া থানায় মোসলেম উদ্দিনের স্ত্রী মরিয়ম বেগম বাদী হয়ে মামলার এজাহার দেয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে এজাহার নামীয় মূল আসামী নয়নের নাম বাদ দিয়ে মামলা রেকর্ড করে পুলিশ।
এদিকে, ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ গত ৩০ অক্টোবর আসামীদের সাথে নিয়ে পুলিশ স্বাক্ষীদের বাসায় বাসায় হানা দেয়। এছাড়াও গত ৩১ অক্টোবর পুলিশ বাদীর বাড়িতে যায়। এসময় পুলিশ তল্লাসীর নামে বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার ভয়ভীতি দেখায় কর্তব্যরত পুলিশ। থানা পুলিশ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করার বদলে হামলায় ঘটনাস্থলের আলামত ও রক্তাক্ত শরীরে থাকা পোসাকগুলো, হাসপাতালের ছাড়পত্র, এমসি জব্দ করার নামে বিভিন্ন হুমকি-ধমকি দিয়েছে আহতদেরকে।
আঙ্গুরা বেগম নামের এক নারী মামলার স্বাক্ষী হওয়ায় তার স্বামী সাবেদ আলীকেও পুলিশের সামনে বেধড়ক মারধর করে আসামীপক্ষ। কিন্তু পুলিশ তখন ছিল নিরব দর্শকের মতো। উল্টো পুলিশ স্বাক্ষীদের হুমকি দিচ্ছে বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ রয়েছে।
সরেজমিনে জানা জানা, প্রায় বছর দেড়েক থেকে শিবু কুটিপাড়াসহ আশপাশ এলাকার বসবাতরত ৪০টি পরিবার নয়ন বাহিনীর রোষানলে পড়ে জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন। থানা পুলিশ কোন অদৃশ্যশক্তিতে নয়নকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে আসছে তা কেউই জানেন না। পুলিশ ছাড়াও র‌্যাব অস্ত্রসহ নয়নকে গ্রেফতার করে। আদালত থেকে জামিনে বেরিয়ে বীরদর্পে এলাকাবাসীর উপর নির্বিঘেœ নির্যাতন ও হামলা করছে। নয়ন বাহিনীর তা-বনীলা থেকে বাচার আকুতি এখন সবার চোখে-মুখে বইছে।
অপরদিকে, মোসলেম উদ্দিন চিকিৎসা শেষে গত ২৮ অক্টোবর বাদী হয়ে রংপুরের কাউনিয়া জুডিশিয়াল আমলী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে নয়ন ও তার ভাই মিলন মিয়া, কেতাব উদ্দিনগংয়ের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
এ ব্যাপারে লোমহর্ষক হামলাকারিরা খোদ সরকার দলীয় রাজনৈতিক দলের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে রয়েছে। কেউই তাদের কর্মকান্ডের বিষয়ে মুখ খোলেন না। মুখ খুললে মামলা-মোকদ্দমা, পুলিশী হয়রানীসহ নৃশংস হামলার ঘটনায় পড়তে হয়। এজন্য আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার না করায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে মামলার বাদী, স্বাক্ষীসহ এলাকার নিরাপদ মানুষজন। হামলার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করার দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারসহ সচেতন এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে মোসলেম উদ্দিন বলেন, নয়ন গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে আদালতে বেশ কয়েকটি মামলা থাকায় তারা আমাকেসহ আমার পরিবারের উপর হামলা চালিয়েছে। এজন্য আমি আদালতের দারস্ত হয়েছি। পুলিশ আমাদের নিরাপত্তা না দিয়ে উল্টো আমাদের ও স্বাক্ষীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসামীদের রক্ষা করার চেষ্টায় মরিয়া হয়ে উঠেছেন বলে অভিযোগ করেন

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com