বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী   পার্বতীপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইসচেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা বন্যার পানিতে সাঁতরে বন্যার্তদের ত্রাণ সংগ্রহ পার্বতীপুর পৌরসভায় মৌসুমি ফল উৎসব বড় পুকুরিয়া কয়লা খনির কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের মানববন্ধন পার্বতীপুর পৌরসভায়  ড্রেন নির্মান কাজের উদ্বোধন দিনাজপুর-বিরামপুর -ঘোড়াঘাট সড়কে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে

ভবিষ্যতের জন্য টেকসই প্রকৃতিভিত্তিক সমাধানে কমনওয়েলথ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে – প্রধানমন্ত্রী

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১
  • ১৬৪ বার পঠিত

বজ্রকথা ডেক্স।- ২৪ মে/২১খ্রি: সোমবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এশিয়ার আঞ্চলিক কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের গোলটেবিল সভায় যোগদিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের জন্য টেকসই এবং প্রকৃতিভিত্তিক সমাধানের জন্য কমনওয়েলথ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া এবং সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্তেত্বও বাংলাদেশ বিশ্বে অ্যাডাপটেশন লিডার হিসেবে আবিভর্‚ত হয়েছে। বাংলাদেশ প্রতি বছর জলবায়ু প্রশমন ও অভিযোজন ব্যবস্থার জন্য নিজস্ব সম্পদ থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করছে। তিনি বলেন, জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত ফোরাম-সিভিএফের চেয়ারম্যান এবং জিসিএর দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক কার্যালয়ের হোস্ট হিসেবে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর স্বার্থ রক্ষা, স্থানীয়ভাবে অভিযোজন সমাধান এবং নদীভাঙনের শিকার লোকদের জন্য বাড়িঘর তৈরিসহ তাদের পুনর্বাসনের চেষ্টা করছি। তিনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে জলবায়ু ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশ ‘মুজিব ক্লাইমেট প্রসপারিটি ইনিশিয়েটিভ’ গ্রহণ করেছে। এই উদ্যোগের আওতায় বাংলাদেশ কম কার্বন নিঃসরণ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে ৪০ গিগা ওয়াট নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদন এবং ৩০ মিলিয়ন বৃক্ষরোপণ করতে যাচ্ছি। করোনা মহামারীর কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, গোটা বিশ্ব অভূতপূর্ব এবং অনিশ্চিত এক মহামারী পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের পরিস্থিতি একই। স্বাস্থ্য সংকটের বাইরেও এই মহামারী আরও অনেক চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি করেছে। যার জন্য আমার সরকার জীবন ও জীবিকাকে প্রাধান্য দিয়ে নীতি এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। মহান আল্লাহর রহমতে বাংলাদেশ এই মহামারীর ক্ষতিকর প্রভাব প্রশমিত করে আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছে।কমনওয়েলথ সদস্য দেশ এবং ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের সভাপতি হিসেবে কপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনকে সামনে রেখে কয়েকটি ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। কার্যকর এবং দক্ষ উপায়ে আরও বেশি স্থিতিশীল ও উন্নত-সমৃদ্ধ জীবন গড়তে বিশ্বজুড়ে সবুজ ও টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং সার্কুলার অর্থনীতিতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।গৃহহীনদের আশ্রয় প্রদানের দিকে সবাইকে মনোনিবেশ করার জন্য অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গৃহহীনদের আশ্রয় প্রদান দারিদ্র্য বিমোচন এবং সুবিধাবঞ্চিত জনগণের জলবায়ু ক্ষতি হ্রাসের সর্বোত্তম কৌশল।’ উল্লেখ্য, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের বড় ছেলে প্রিন্স ফিলিপ আর্থার জর্জ এ সভা আহ্বান করেছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com