শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পলাশবাড়ী কৃষি কর্মকর্তা কে মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষায় পুরুস্কার লাভ গাইবান্ধা-৫ আসনে আচরণবিধি লঙ্খন করায়  কারন দর্শানোর নোটিশ বিরামপুর হানাদার মুক্ত দিবস পালিত   জাতীয় পার্টি গঙ্গাচড়া উপজেলা শাখার আহবায়ক কমিটি অনুমোদন পীরগঞ্জ মুক্ত দিবস পালন বিরামপুরে জুয়া খালার ৫ জুয়াড়ীকে আটক করেছে পুলিশ  নারী নির্যাতনের প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে গাইবান্ধায় মানববন্ধন পার্বতীপুরে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণের জন্য স্কুল ব্যাগ প্রদান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব খতিব উদ্দিন আহমেদ এর জানাযা নামাজ অনুষ্ঠিত দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ৭ দিনব্যাপী গাভী পালন প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন

যাদবপুর দরবার শরীফের কিছু কথা

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৫০ বার পঠিত

সুলতান আহমেদ সোন।-  ধর্মে যার মতি আছে, সেই ধার্মিক। পৃথিবীতে ধার্মিকের সংখাই বেশী। তাই বলা যায়,পত্যেক ব্যক্তিই ধার্মিক!যারা ধর্মের অনুসারী তাদেরকে সকলেই সন্মান করেন ও শ্রদ্ধা করেন।

ধর্ম পালন করলে মন শান্ত হয়, শান্তি মেলে অন্তরে। তাই শান্তি পেতে হলে ধর্মিককে পথ  প্রদর্শক  খুঁজতে হবে  ধরতে হবে, তাঁকে অনুস্মরণ করতে হবে। কে সেই পথ প্রদর্শক ? পীর মাশোয়েকগণ হলেন সেই পথ প্রদর্শক; যারা  মানুষকে  ধর্ম  পালনের সঠিক পথ দেখিয়ে থাকেন।

পীরগঞ্জ উপজেলার যাদপুর গ্রামে  একজন পথ প্রদর্শক বা পীর ছিলেন, তার নাম হযরত আব্দুল লতিফ মন্ডল  মোজাদেদী । তিনি ইন্তেকাল ফরমাইয়াছেন। কিন্তু তার দরবার শরীফ রয়েছে যাদবপুরে । সকলের জ্ঞাতার্থে    জানাচ্ছি  রংপুর জেলাধীন পীরগঞ্জ উপজেলার চতরা ইউনিয়ন ও বড় আলমপুর ইউনিয়নের মাঝামাঝি  কাছাকছি এই  যাদবপুর দরবার শরীফ  অবস্থিত। ১৯৭৪ সালে এই দরবার প্রতিষ্ঠা করেন অলীয়ে কামেল হযরত আব্দুল লতিফ মন্ডল পীর সাহেব কেবলা ।

এই সিলসিলার  হুজুর  পীর সাহেব একজন মহৎ মানুষ হিসেবে এলাকায় পরিচিতি পেয়েছেন। তিনি ২৯ মার্চ ২০০৫ সালে দেহ ত্যাগ করেছেন। হুজুরের মাজার যাদবপুর দরবার শরীফের সীমানার মধ্যেই অবস্থিত।

বর্তমানে খেলাফত পরিচালনা করছেন, পীর কেবলার অতি  স্নেহের  সু-সন্তান, আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর  রহমান আল মোজাদেদী ।

বলে রাখছি, সারা বছর এই দরবারে লোকজন, ভক্ত সাধারন যাতায়াত করে থাকেন। তবে বিশেষ বিশেষ দিবস ও ধর্মীয়অনুষ্ঠানগুলোতে  ব্যাপক ভক্তজনের সমাবেশ ঘটে এখানে। এখানে যে সব দিবস পালন করা হয়ে থাকে, তা হলো ,পবিত্র আশুরা, ঈদে মিলাদুন্নী (সাঃ), শবে মেরাজ, শবে বারাত,শবে কদর, ১৭ সফর হুজুর এর ওফাত দিবস, পয়লা বৈশাখ ইলমে তরিকার ছবক শিক্ষা দিবস, বার্ষিক ওরছ মাহফিল। বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল। এই সব দিবসে, দুর দুরান্ত থেকে প্রতি বছর শত শত মানুষ অংশ নেন। আপনিও আসতে পারেন।

খেলাফতের আলোকিত মানুষ,আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর  রহমান আল মোজাদেদী , তার সান্যিদ্ধ আপনিও পেতে পারেন। এই দরবারে এলে  আপনার মনে শান্তি ফিরে আসবেই । দরবার শরীফ এর অনেক গুলো উন্নয়ন মূলক ভাবনা চলমান আছে। আপনি তাতেও শরীক হবার সুযোগ পাবেন।

দরবারের অন্যতম প্রধান খাদেম বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  জনাব আব্দুল জলিল প্রধান বজ্রকথাকে  জানিয়েছেন, দরবারের পরিচালনায় হাফেজিয়া মাদ্রসা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। পাশাপাশি ছুন্নতি মাদ্রসা প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। গরিব মিসকিনদের জন্য ফান্ড প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ধর্মীয় উচ্চ শিক্ষার জন্য শিক্ষা সহায়তা চালু আছে।মসজিদ, মক্তব, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার জন্য সর্বত্র আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। সন্মানিত খাদেম মহোদয় সকলকে দরবারে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com