রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পার্বতীপুরে গুরুত্ব ও সচেতনতা বিষয়ক কর্মশালা পার্বতীপুরের রেলওয়ে কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানায় স্বল্প জনবল দিয়েই চলছে নির্ধারিত কার্যক্রম রাজাকাররা কোটার নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বড়পুকুরিয়ায় ১২টি গ্রাম  ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির মানববন্ধন পীরগঞ্জ সাঈদের দাফন সম্পন্ন কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

শুধু পদ্মা নয় তিস্তার প্রকল্প বাস্তবায়নসহ দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিতে হবে সরকারকে – বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ রাঙ্গা 

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৭৮ বার পঠিত
রংপুুর প্রতিনিধি।- জাতীয় সংসদর বিরাধী দলীয় চীফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির সাবক মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেছেন, শুধু পদ্মা সেতু নিয়ে থাকলে চলবে না। দ্রুব্যমুল্যর অস্বাভাবাবিক উর্ধগতিতে মানুষের নাভিশ্বাস উঠে গেছে সিন্ডিকেটের মাধ্যমেই এটা করা হচ্ছে। এ বিষয় সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।
 গত ১৫ নভেম্বর রােববার দুপুর রংপুরের পল্লী নিবাসে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসইন মুহাম্মদ এরশাদের মাজার জিয়ারত শেষে তিনি সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে একথা বলেন। এসময় দলটির প্রসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর সিটি মেয়র মােস্তিাফিজার রহমান মােস্তফা, কেদ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর জেলা সাধারণ সম্পাদক হাজি আব্দুর রাজ্জাক, জেলা যুব সংহতির সভাপতি হাসানুজ্জামান নাজিম, জেলা ছাত্রসমাজর আহবায়ক আরিফুর রহমান আরিফসহ জেলা ও মহানগরের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
এসময় সাবেক প্রতিম্ত্রী রাঙ্গা বলেন, করােনার কারণে মধ্যবিত্ত  ও নিম্ম বিত্তদের দিন আনা দিন খাওয়া হয়ে গেছে। তাদের ক্রয়ের ক্ষমতা নেই। দ্রব্যমূল্যর উর্ধ্বগতির কারণে যেন কােন মানুষ না খেয়ে মারা না যায়, দুর্ভিক্ষ তৈরি না হয়, সেটি সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে।
তিনি আরও বলেন যখন আমাদের দেশের বাজেট ৬৭ হাজার কােটি টাকা। সেখানে সাড়ে ৮ হাজার কােটি টাকা কােন ব্যপার না। চীন না দিলেও নিজেদের অর্থায়নেই তিস্তার প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। এছাড়াও ভারতের সাথে অভিন্ন ৫৪ টি নদী আছে সেগুলােও শাসন করতে হবে। তিস্তা খনন করা গেলে এই অঞ্চলের কৃষির ফলন উন্নত হবে। লাখ লাখ কৃষিকাজের উপর নির্ভরশীল হয়ে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী হয়ে  স্বাভাবিক জীবন ফিরতে পারবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com