বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পার্বতীপুরে গুরুত্ব ও সচেতনতা বিষয়ক কর্মশালা পার্বতীপুরের রেলওয়ে কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানায় স্বল্প জনবল দিয়েই চলছে নির্ধারিত কার্যক্রম রাজাকাররা কোটার নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বড়পুকুরিয়ায় ১২টি গ্রাম  ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির মানববন্ধন পীরগঞ্জ সাঈদের দাফন সম্পন্ন কোটা বিরোধী আন্দোলনে নিহত শিক্ষার্থী সাঈদের বাড়ীতে শোকের মাতম নেটওয়ার্কের সক্ষমতা বাড়াতে এআই যুক্ত করার ঘোষণা হুয়াওয়ের রংপুরে কোটা বিরোধী আন্দোলন এক শিক্ষার্থী নিহত তৃণমূল পর্যায়ে চিকিৎসার মান উন্নত করলে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক রোগী শুন্য হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

কবি ও লেখক তৌফিক সুলতান এর সাত কবিতা

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ১৫২ বার পঠিত

কবি ও লেখক তৌফিক সুলতান  ১৯৯৯ সালের ৪ ফেব্রুয়ারী (বাংলা বৃহস্পতিবার, ২১ মাঘ ১৪০৫ বঙ্গাব্দ) ১৭ই শাওয়াল, ১৪১৯ হি: বাংলাদেশের গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার অন্তর্গত বারিষাব গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

কবি ও লেখক তৌফিক সুলতান ( Poet and Writer Towfiq Sultan) ইসলাম তাজ বালিকা দাখিল মাদ্রাসার প্রাক্তন শিক্ষক আব্দুল করিম (1 January 1972) এবং ফাতেমা বেগমের (3 March 1982) জ্যেষ্ঠ সন্তান। ছোট ভাই মুহাম্মদ ফাহিম আল তৌফিকী মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। বর্তমান সময়ে বেশ আলোচিত নাম কবি, গল্পকার ও প্রাবন্ধিক তৌফিক সুলতান।তিনি বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রতিবেদন,ফিচার ও কলাম লিখে থাকেন। তাছাড়া তিনি সাম্প্রতিক প্রবন্ধ, উপন্যাস ও ছোট গল্প লিখছেন যা আগামীতে বই আকারে প্রকাশ পাবে বলে আশা রাখছি।
১। প্রশংসা পরাক্রম.
 কেউ প্রশংসা করলে খারাপ সময়ে পাশে থাকলে অকাজের লোকটাও একটা সময় সফল হয়।
প্রশান্তির নদী প্রবাহিত হলে দূরে থাকে ভয়!
 ভালোবাসা পেলে পাথরের হৃদয়েও ফুল ফুটে।
 পাশে থাকার নিশ্চয়তা পেলে হতাশ মানুষটার হৃদয়ে আশার আলো উজ্জীবিত হয়ে উঠে।
 সঠিক জীবনসঙ্গী পেলে মৃত্যুর পথ যাত্রীও বেঁচে থাকার অনুপ্রেরণা পায়।
স্রষ্টার সন্ধান পেলে বান্দার মস্তক সিজদাহ্য় অবনত হয়ে যায়।
২। প্রিয় সন্ন্যাসী
তোমার ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত হলেও কি আর করার! আমি তোমাকেই অগাধ বিশ্বস্ততা নিয়ে ভালোবাসি।
অমিত অমিল অবহেলায় অনিবার্য অনির অন্বয়ী অনিয়ম।
পানির তৃষ্ণায় ক্লান্তিতে শান্তি খুঁজি তবুও পানি পান করি না।
কেউ পানি দিলেও তা গ্রহণ করি না ফিরিয়ে দেই।
তোমার অপেক্ষায় থাকি।
উপেক্ষা করি সবই-আমি জানি তুমি একদিন ঠিকই;
আমার জন্য হৃদয় শীতল করা পানি নিয়ে আসবে প্রিয় সন্ন্যাসী।
অনির – অসাধু।
অন্বয়ী – ঐক্য।
অমিত – অপরিসীম,ভয়ঙ্কর।
৩। হে প্রিয় রাসূল
তোমাকে দেখিনি কবু
হে প্রিয় রাসূল।
শূন্য মরুর বুকে তুমি
ফুটিয়েছ ফুল।
জাহিলিয়াতের যুগে যারা
চোখ রেখেও ছিল অন্ধ!
তাদের দেখিয়েছ আলো
বন্ধ করছে তুমি যুগ যুগ ধরে
চলে আসা দ্বন্দ্ব।
কোরআন কে যারা বলে ছিলো
যাদু কিংবা কবিতার ছন্দ।
তারা-ও হয়েছে মুসলিম
পেয়েছে ইসলামের পতাকায় ঠাই
কালিমার সাক্ষ্য দিয়েছে চন্দ।
এই কালিমার দাওয়াত
কতো বাঁধা বিপত্তি করছে বন্ধ।
ডাকাত হয়েছে ভালো
ছেড়ে কতো কাজ যা কিছু মন্দ।
৪। মহাজ্ঞানী
যিনি জানেন স্রষ্টার বানী; তিনি হলেন মহা জ্ঞানী,
যারা স্রষ্টার সাথে সম্পর্ক করেছেন,
তাদের মধ্যে এক দল হলো নবী।
কেমন করে স্রষ্টার সাথে সম্পর্ক করা যায়,
সেই কথাটাই দিন রাত্রি ভাবি।
ভাবিয়া ভাবিয়া সময় অতিবাহিত করে নাহি কোনো কাজ!
সফল হতে হলে স্রষ্টার সাথে সম্পর্ক করতে হবে আজ।
স্রষ্টা মোদের সামান্য জ্ঞান দিয়ে করেছেন সৃষ্টি;
চারপাশে তাকিয়ে দেখো কি দেখতে পাও দৃষ্টি।
সকল জ্ঞানের উৎস তিনি আমরা সবাই জানি।
তিনি ছাড়া আর কিছু নাই তাও আমরা মানি।
যদি তুমি হয়ে যাও নিঃস্ব জ্ঞানই তখন হবে তোমার একমাত্র শিষ্য।
বদলে যাওয়া পৃথিবীর আবরণ দেখিবে; দেখিবে চমকপ্রদ দৃশ্য।
৫। পথভুলা পথিক
অযাচিতমোহ কেটে গেলে মানুষ তার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে।
 ফিরে এসে দেখে অনেক দেড়ি হয়ে গিয়েছে।
ততক্ষণে তার এই অযাচিত মোহ ধ্বংস করে দিয়েছে
 তার চারপাশ।
তবুও কিছু মানুষ বেঁচে থাকে দুঃখনিয়ে এক আকাশ।
অবিধেয় চাওয়া কখনো না পাওয়া
অনিশ্চিত জীবন নিয়ে মানুষের আগ্রহ অধিক।
চারদিকে ঝাপসা অন্ধকারে তলিয়ে যাওয়া
আমি এক পথভুলা পথিক।
৬। অন্ত সংবাদ
জন্ম হলে মৃত্যু হবে,
সৃষ্টি হলে ধ্বংস।
শুরু হলে শেষ হবে,
মানুষ থেকে বংশ।
জন্ম নেওয়ার পর থেকেই
আছো তুমি সুখে।
তোমার পাশের অনেকেই
আছে অনেক দুখে।
জাতপাত ভুলে গিয়ে
কে দিবে যে রুখে।
এমন অনেক কথাই
তুমি শুনবে কিছু মুখে।
এসব কিছু শুনলে
হয়তো কষ্ট পাবে বুকে।
সত্য হলো কিছু মানুষ
মরছে ধুঁকে ধুঁকে।
৭। হৃদয় থেকে লিখিত
আলতো করে চায়ের কাপে চুমুক দিও।
সময় পেলেই তুমি আমার খবরনিও।
আমায় তুমি না পেলেও খুঁজে নিও।
আমার খবর না নিলেও তোমার খবর আমাইদিও।
আমি কোথায় থাকতে পারি সেটা তুমি বুঝে নিও।
জানা না থাকলে তুমার!! জেনে নিও।
আমি কোথায় থাকতে পারি, তুমি তা খুঁজে নিও।
হৃদয় টাকে বোঝতে পারার সুযোগ দিও।
আমি তোমায় ভালোবাসি ওগো প্রিয়।
প্রকাশ না করলেও তা বুঝে নিও।
হৃদয়টাকে শান্ত করতে সঙ্গ দিও।
আমি তোমায় ভালোবাসি ওগো প্রিয়!
আমায় তুমি ভালোনাবাসলেও
তোমায় ভালোবাসতে দিও..!
আমি তোমায় ভালোবাসি ওগো প্রিয়!
তোমায় ভালোবাসার একটুখানি সুযোগ দিও।
কিছুখনের জন্য হলেও তোমার পাশে বসতে দিও..!
সুযোগ পেলেই তুমি আমার খবর নিও।
 তোমার হৃদয়ে একটুখানি জায়গা দিও।
সময় পেলে হৃদয়ে একটু যত্ন নিও।
আমি তোমায় ভালোবাসি ওগো প্রিয়!
লেখক: রাকিব হোসাইন, কলামিস্ট ও সংবাদকর্মী
রামপুরা, ঢাকা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com