1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
৩৩৩-এ কল করে খাদ্য সহায়তা পেল সাদুল্লাপুরের ৬০ কর্মহীন পরিবার সাদুল্লাপুরে স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে রেখে পালালেন স্বামী সুন্দরগঞ্জে স্বামীকে হত্যার দ্বায় স্বীকার করেছে স্ত্রী বগুড়ার শেরপুরে কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের অবৈধ কমিটি বাতিলে সংবাদ সম্মেলন শেরপুরে ভাতিজিকে উত্যক্ত প্রতিবাদ করায় চাচাকে ছুরিকাঘাত গাইবান্ধায় ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ওপরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত রংপুরে স্মৃতিতে রণাঙ্গন এর মোড়ক উন্মোচন বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র আন্দোলন চাকুরীর দাবীতে ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন হালনাগাদ তথ্য ছাড়াই চলছে শেরপুর উপজেলা পরিষদের সরকারি ওয়েবসাইড  বন্ধ রেল স্টেশনে থামছে ট্রেন: টিকিট ছাড়াই যাত্রী ওঠানামা

ধর্ষণের সাজা যাবজ্জীন থেকে মৃত্যুদন্ড

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৪ বার পঠিত

বজ্রকথা রিপোর্ট।- দেশকে ধর্ষণ মুক্ত করতে ‘নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন’ সংশোধন করে অধ্যাদেশ আকারে জারির জন্য এর খসড়ার নীতিগত ও চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এই আইনে ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান সংযোজন করা হয়েছে।
১২ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে আইনের খসড়াটি চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন। সচিবালয় থেকে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীরা যুক্ত ছিলেন।আজ এটি রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ আকারে জারি করার কথা। মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সচিবালয়ে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সংসদ চালু না থাকায় এটি রাষ্ট্রপতি অধ্যাদেশ আকারে জারি করতে পারবেন।
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় ধর্ষণের জন্য যাবজ্জীবন কারাদন্ডের বিধান ছিল। মস্ত্রিসভার বৈঠকে এ ধারায় সংশোধনীর প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। সংশোধনী অনুযায়ী ধর্ষণের শাস্তি হবে মৃত্যুদন্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদন্ড। ধারা ৯(১) এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা থাকায় ৯(৪) ধারাতেও সংশোধন আনা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, কিছুদিন আগে হাই কোর্ট বিভাগের একটি দ্বৈত বেঞ্চ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১(গ) ধারা সংশোধন করে সাধারণ জখমের জন্য আপসের বিধান রাখার নির্দেশ দিয়েছিল। সে অনুযায়ী ১১(গ) ধারা সংশোধন করে আপসের বিধান রাখা হয়েছে। এ ছাড়া ২০১৩ সালের শিশু আইনের একটি সংশোধনী আনা হয়েছে। তিনি বলেন, মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপরি উল্লিখিত সংশোধনীগুলো ভেটিং সাপেক্ষে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে সংসদ অধিবেশন চলমান না থাকায় এটা অধ্যাদেশ আকারে জারি করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং ১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির আদেশ বলে এটাকে অধ্যাদেশ হিসেবে জারি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, ‘ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের মাধ্যমে আমাদের এ দেশ ধর্ষণমুক্ত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com