1. admin@bwazarakatha.com : bwazarakatha com : bwazarakatha com
বুধবার, ০৫ মে ২০২১, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পীরগঞ্জে মার্কেটে উপচেপড়া ভিড়: মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি পার্বতীপুরে হেরোইনসহ মাদক বিক্রেতা গ্রেফতার পীরগঞ্জে আওয়ামী লীগের মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ সুন্দরগঞ্জে বিধবাকে গণধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার মিঠাপুকুরে ছিনতাইয়ের চার ঘণ্টার মধ্যে ইজিবাইক উদ্ধার আটক ২ দিনাজপুরে করোনায় মৃত্যুবরণ করা দুই জন নার্সের পরিবারের কাছে ৭৫ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর বালুয়াডাঙ্গা টেম্পু স্ট্যান্ড শাখার কার্যকরী কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা পীরগঞ্জে ছয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকারের জরিমানা দিনাজপুর-ঘোড়াঘাট সড়কে বাস চলাচল শুরু নবাবগঞ্জে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ: গ্রেফতার ১

পাকুন্দিয়ায় শিক্ষকের কান্ড: বিয়ের প্রলোভনে ফেলে ছাত্রীকে ১০ বছর ধরে ধর্ষণ

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৪৩ বার পঠিত

কটিয়াদী(কিশোরগঞ্জ) থেকে রনবীর সিংহ ।- কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় বিয়ের প্রলোভনে এক ছাত্রীকে ১০ বছর ধরে কাইয়ূম নামে এক শিক্ষক ধর্ষণ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার বিকালে ওই ছাত্রীর বাবা পাকুন্দিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত কাইয়ূম চরতের টেকিয়া মৌজা বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তার বাড়ি উপজেলার চরতেরটেকিয়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের নুরুজ্জামানের ছেলে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালে ওই বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় ওই ছাত্রী কাইয়ূমের কাছে প্রাইভেট পড়ত। তখন ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন কাইয়ূম। এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দৈহিক সম্পর্কও গড়ে তুলেন তিনি। ২০১৫ সালে এসএসসি পাস করেন ছাত্রীটি। বর্তমানে তিনি একটি কলেজে ডিগ্রি ২য় বর্ষে অধ্যয়নরত। তিন বছর আগে পারিবারিকভাবে উপজেলার একটি গ্রামে ওই ছাত্রীটিকে বিয়ে দেয় তার পরিবার। এরপরও থেমে নেই কাইয়ূম। ওই ছাত্রীর মুঠোফোনে তার সাথে যোগাযোগ অব্যাহত থাকে। তিনি বিভিন্ন সময়ে মুঠোফোনে ওই ছাত্রীর স্বামীকে নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল। পুনরায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্বামীর সংসার ত্যাগ করে তার সঙ্গে চলে আসতে ওই ছাত্রীকেও প্রলুব্ধ করছিলেন। ছাত্রীটি কয়েকদিন আগে তার বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। এই সুযোগে ছাত্রীকে ফুসলিয়ে ওই শিক্ষক তার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে ছাত্রীর সঙ্গে রাত্রিযাপন করেন তিনি। পরের দিন ৩ সেপ্টেম্বর সকালে কাজীর মাধ্যমে বিয়ের জন্য চাপ দিলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় কাইয়ূম। বিষয়টি ওই ছাত্রী মুঠোফোনে তার বাবাকে জানায়। পরে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ওই বাড়িতে উপস্থিত হন তার বাবা। গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে কাইয়ূমের বাবা নূরুজ্জামানকে চাপ দিলেও তিনি বিবাহ করাতে রাজি হননি। পরে মঙ্গলবার বিকালে পাকুন্দিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ছাত্রীর বাবা। ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার মেয়ে ওই বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় কাইয়ূমের কাছে প্রাইভেট পড়তো। এই সুযোগে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন কাইয়ূম। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলেন। মেয়েকে অন্য জায়গায় বিয়ে দিয়ে দেই। সেখান মেয়েটিকে সুখে থাকতে দেয়নি কাইয়ূম। ফুসলিয়ে একটি সংসার ভেঙ্গে মেয়েটিকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে মেয়েকে বাড়িতে রেখেই সে পালিয়ে যায়। পাকুন্দিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মফিজুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Bwazarakatha.Com
Design & Development By Hostitbd.Com