বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০১:৫৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রংপুর বিভাগের নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান- ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ রংপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন প্রার্থী আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা মর্যাদার লড়াই জাতীয় পার্টির বিরামপুর পুলিশ বক্স ও বিট পুলিশিং কার্যালয়ের উদ্বোধন নদীর ভাঙন প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম  দেখার কেউ নেই “স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তী পুরস্কার ২০২৩” পেল প্রাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট রংপুরে যুবদল নেতা নয়নের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রংপুর নগরীতে  বাড়িতে হামলা সরকারি জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ  বিরামপুরে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহে মা দিবস অনুষ্ঠিত

পীরগঞ্জে জোড়াতালির কাজ রং করতেই আড়াই লাখ শেষ

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৯২ বার পঠিত

পীরগঞ্জ(রংপুর) প্রতিনিধি।- রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্ষুদ্র মেরামত এর কাজে সীমাহীন অনিয়ম ও দুর্নীতি করা হচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির কাজ যেন তেন ভাবে করে লাখ লাখ টাকা লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
অভিযোগ উঠেছে অনন্তপুর প্রথামিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। যিনি জোড়া তালি দিয়ে কাজ করেছেন তার বিদ্যালয়ে। পীরগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে,চতরা ইউনিয়েনের অনন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে মাইনর (ক্ষুদ্র) মেরামতের জন্য ২ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। বিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র মেরামতের কাজ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির (এসএমসি) মাধ্যমে করার কথা। কিন্তু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কবির হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা প্রকৌশল অফিসের সঙ্গে যোগসাজশ করে কাগজে কলমে প্রাক্কলন ও রং করেই বরাদ্দকৃত অর্থ নয় ছয় করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। দুঃখজনক হলেও সত্য বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ অন্যান্য সদস্যরা বরাদ্দের কথা জানলেও কিভাবে অর্থ ব্যবহার করতে হবে এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না। সরেজমিন অনন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয় মেরামতের ২ লাখ টাকা দিয়ে আশানুরুপ দৃশ্যমান কোন কাজই করা হয়নি। বাইরে রং করলেও ভিতরের ছাদ রং করা হয়নি!
উপজেলার চতরা ইউনিয়নের অনন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কবির হোসেন জানান, ক্ষুদ্র মেরামতের জন্য ২ লাখ টাকা’ এবং স্লিপের ৫০ হাজার টাকা দিয়ে স্কুল রং করা এবং বাথরুমের কাজ করেছি। ‘অনন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি খাদেমুল ইসলাম জানান, ‘কিছুদিন পুর্বে বিদ্যালয় ভবনের বাইরে অংশে রং করা হয়েছে। এছাড়া আর কি কাজ করা হয়েছে বলতে পারবো না, প্রধান শিক্ষক বলতে পারবেন।’পীরগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রফিক উজ জামান জানান, ‘২০১৯-২০ অর্থবছরে বরাদ্দপ্রাপ্ত সকল টাকাই বিধি মোতাবেক ব্যয় করা হয়েছে। এছাড়া মাইনর মেরামতে কোন অনিয়ম হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com