শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৮:৩১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
চিলমারী কল্যাণ সমিতির কমিটি গঠন পীরগঞ্জে পাটচাষীদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত   দিনাজপুর শিশু একাডেমীর চিত্রাংকনসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে নেসকো গ্রাহকদের নিয়েপিএলসির নেসকোর  গণশুনানী ফুলবাড়ী শিবনগর ইউনিয়নে বয়স্ক ও বিধবা ভাতার কার্ড এর লটারি অনুষ্ঠিত  পলাশবাড়ীতে দুই বাইকের সংঘর্ষে আহত স্বদেশ এর মৃত্যু এসএসসি পরীক্ষায় মোবাইলে  প্রশ্নপত্র ফাঁস এক শিক্ষকের কারাদন্ড রংপুরে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন “শেকড় ” এর সহয়োগীতায় বর্ণমালায় রোদ্দুর কবিতা পাঠের আসর বাংলাদেশ প্রেসক্লাব পীরগঞ্জ শাখার সম্মেলন ও কমিটি গঠন

রংপুর -৫ আসনে এক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল প্রশ্নে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৩৯ বার পঠিত

রংপুর থেকে সোহেল রশিদ।- রংপুর -৫ মিঠাপুকুর আসনের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন জমে উঠেছে। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাচাইয়ে নৌকার প্রার্থী রাশেক রহমান, জাপা প্রার্থী আনিছুর রহমানসহ ৭ প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মনোনয়পত্র বাতিল করা হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সরকারের। ২০০১ সালের দায়ের করা একটি মামলার কারণে জাকির হোসেনের মনোনয়পত্রটি বাতিল করেছেন রংপুর জেলা প্রশাসক ও রির্টানিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান। সেই একই মামলায় ৩ নম্বর আসামী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রাশেক রহমান। একটি মামলার কারণে একজনের বৈধ ও আরেকজনের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকে পক্ষপাত মুলক আচরণের অভিযোগ তুলেছেন।
জানা গেছে, ২০০১ সালে মিঠাপুকুর-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শাহ্ সোলায়মান আলম ফরির বাদি হয়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি করেছিলেন। যার নং- জিআর ৫৪৯/২০০১। সেই মামলায় আসামি ছিলেন বর্তমান সংসদ সদস্য এইচএন আশিকুর রহমান, বর্তমান নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রাশেক রহমান, তৎকালিন ছাত্রলীগের সম্পাদক মাহবুবার রহমান উজ্বল, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মোজাম্মেল হক মিন্টু মিয়া, সম্পাদক জাকির হোসেন, তৎকালিন যুবলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান কামরুসহ ৯ জন। মামলায় জাকির হোসেনের গ্রাম ও পিতার নাম সঠিক ছিলনা। মামলাটি তদন্ত করে মিঠাপুকুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা কৃষ্ণ কুমার ২০/১১/২০০২ সালে মামলাটির চুড়ান্ত রিপোর্ট প্রদান করেন।
এবিষয়ে জাকির হোসেন সরকার সাংবাদিকদের বলেছেন, যে মামলাটি দেখানো হয়েছে, সেই মামলায় আমার পিতার নাম সঠিক নয়, গ্রামের নাম ভুল রয়েছে। সঠিক না থাকার কারণে থানা পুলিশ মামলাটি চুড়ান্ত রিপোর্ট দিয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমি ইতোপূর্বে ৩টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছি, বিজয়ী হয়েছি। তখন এরকম প্রশ্ন ওঠেনি। মুলত. আমার জনপ্রিয়তাকে ভয় করে একটি কু-চক্রী মহল চক্রান্ত করছে।
এ ব্যাপারে রংপুর জেলা প্রশাসক ও রির্টানিং কর্মকর্তা মোবাশ্বের হাসান সাংবাদিকদের বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকির হোসেন তথ্য গোপন করায় তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এ নিয়ে জাকির হোসেন তার প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন তিনি এই সিদ্ধান্তের কিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com