রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন

লেখক পরিচিতি

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০
  • ১৯৫ বার পঠিত
কবি মহিউদ্দিন বিন জুবায়েদ

আজকের কবি: মহিউদ্দিন বিন জুবায়েদ

কনক আচার্য। – আমরা বই পুস্তক, পত্র পত্রিকায় অনেক লেখকের লেখা পড়ে থাকি । কিন্তু লেখকদের লেখাগুলো পাঠ করে তাদের লেখার সাথে বা লেখকের নামের সাথে পরিচয় ঘটলেও তাদের সব কিছু জানার সুযোগ অনেক সময় হয়না। তাই আমরা বজ্রকথার সাথে সংশ্লিষ্ট লেখক,কবি-সাহিত্যিকদের পরিচয় তুলে ধরার চেষ্টা করছি । আজকের কবি মহিউদ্দিন বিন্ জুবায়েদ। এই কবি ১৩৮৭ বাংলা সালের ১৭ই আষাঢ় ( ১৯৮০ খ্রীঃ ৭ সেপ্টেম্বর) রোজ মঙ্গলবার শেরপুর সদর উপজেলার ৬নং পাকুড়িয়া ইউনিয়নের মুহিমনগর, চৈতনখিলা গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। পিতা মৌলভী মোহাম্মদ জোবায়েদ উল্লাহ। কর্মজীবনে তার পিতা ছিলেন একজন প্রাইমারী স্কুলের শিক্ষক। মাতা মরিয়ম বেগম ছিলেন একজন গৃহিনী। পাঁচ ভাই- বোনের মধ্যে কবি সর্বকনিষ্ঠ।
মহিউদ্দিন বিন্ জুবায়েদ নব্বই দশকের কবি। ১৯৯৭ খ্রীঃ থেকে তিনি লেখা- লেখি শুরু করেন। লেখা- লেখি শুরুটা ছিল কবিতা দিয়েই। জানা যায় মাত্র ১৭ বছর বয়সে কবিতার যে পটভুমি হৃদয়ে জেগেছে তা কেবল প্রসারিতই হয়েছে। প্রথম লেখা কবিতা ‘বৈশাখে’। তার লেখা-লেখির মুল উপজীব্য বিষয়- গ্রাম্য জীবন, আর্থ- সামাজিক প্রেক্ষপট, প্রেম- দ্রোহ, আশা- আকাংখা, ইসলামী তাহজীব- তামাদ্দুন এবং আঁকা ঝোকার প্রতি ছিল প্রবল ঝোক। জানা যায় কবি হলেও সাহিত্যের অন্যান্য শাখায়ও তার বিচরণ রয়েছে। প্রবন্ধ, গল্প, উপন্যাস,শিশুতোষ, আত্মজীবনী,ভ্রমণ কাহিনী, গবেষণামূলক ইত্যাদি রচনায়।তার প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা এ পর্যন্ত ৪২টি। যেমন- ১. বিয়ের পিঁড়িতে সুমি( ২০০১) ২. ছড়ায় ছন্দে হেরার জ্যোতি( ২০০১) ৩. পালকি ভরা গল্পগুচ্ছ( ২০০১)৪. শরত ঋতুর ভালবাসা( ২০০২) ৫. ঝরা গোলাপের সৌরভ( ২০০২) ৬. নারী ( ২০০৫) ৭. ঘাস ফড়িং( ২০০৬) ৮. না জাগালে ছন্দ( ২০০৭) ৯. বিদেশ ফেরত স্বামী ও স্ত্রীর ভালোবাসা( ২০০৭) ১০. মেঠো গ্রাম( ২০০৯) ১১. প্রবাল দ্বীপের হাতছানি( ২০০৯)১২. জীবন যেমন( ২০১০) ১৩.শেরপুর জেলার ইতিকথা ও দর্শনীয় স্থান( ২০১১) ১৪. প্রেমের গল্প( ২০১২) ১৫. সোনামণিদের ছড়া – ১ ( ২০১৩) ১৬. সোনামণিদের ছড়া- ২ ( ২০১৪) ১৭.ছড়া দিয়ে গড়বো এদেশ( ২০১৮) ১৮. তোমাকে খুঁজে ফিরি চৈতালী হাওয়ায়( ২০১৮) ১৯. ফুলে ফুলে সুবাসিত ভোর ( ২০১৮) ২০. মজার মজার গল্প ( ২০১৮) ২১. প্রজাপতির রঙিন ডানা ( ২০১৯) ২২. ভোর হলো দোর খোল ( ২০১৯) ২৩. আল্লাহর পরিচয় ( ২০১৯) ২৪. যৌথ -ভালোবাসার পংঙক্তিমালা ( ২০১৯) ২৫. যৌথ -জীবন ছোঁয়া ( ২০১৯) ২৬. যৌথ- কবি ( ২০১৯) ২৭. যৌথ- ছেঁড়া পালকের কাব্য ( ২০১৯) ২৮. যৌথ- কবি উদ্যান ( ২০১৯) ২৯. যৌথ- দুই বাংলার সমকালীন কবিতা ( ২০১৯) ৩০. যৌথ – বাংলার রূপরেখা ( ২০১৯) ৩১. যৌথ- বাতায়নে তার দেখা ( ২০১৯) ৩২. যৌথ- বিষাদের জাল ( ২০১৯) ৩৩. যৌথ- অভিযাত্রী ( ২০১৯) ৩৪. যৌথ- কবিকোষ- ৪ ( ২০১৯) ৩৫. জীবন ও কবিতা ( ২০১৯) ৩৬. এক পশলা বৃষ্টি ( ২০১৯) ৩৭. সাহসের বহমান নদী ( ২০১৯) ৩৮. দুঃখিনী মা ( ২০১৯) ৩৯. যৌথ- কবিকোষ- ৫ ( ২০২০) ৪০. যৌথ- রোদ্দুর ( ২০২০) ৪১. যৌথ- চিরদিনের বর্ণমালা( ২০২০) ৪২. যৌথ- সত্যবাণী ( ২০২০) আরো অনেক পান্ডুলিপি অপ্রকাশিত রয়েছে। জাবি জানিয়েছেন,অপ্রকাশিত পান্ডিুলিপিগুলো তাড়াতাড়ি প্রকাশিত হবে বলে ।
কবি মহিউদ্দিন সম্পাদনার সাথে সম্পৃক্ত বলে জানা যায়। তিনি এখন পর্যন্ত ৪টি ম্যাগাজিন সম্পাদনা করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে১. দীপ্তি ( সাহিত্য – সংস্কৃতি পত্রিকা) ২. সিঁড়ি ( কবিতার কাগজ) ৩. মুহিমনগরের ট্রেন(সাহিত্য পত্রিকা)৪. পাঠশালা (স্কুল মুখপত্র) এছাড়াও বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে ভাঁজপত্রও সম্পাদনা করেন। ভাঁজপত্রের মধ্যে রয়েছে-১. উল্টরণ ২. লাল সবুজের পতাকা ৩ .আর্তনাদ ৪. সূচনা । কবি ২০০৪ সালে “মাসিক ভোরের কলরব” পত্রিকারও উপদেষ্ঠা ছিলেন।
লেখালেখির কারনে সন্মানও পেয়েছেন। এছাড়াও ১. পান্ডুলিপি অনুপ্রেরণামূলক পুরস্কার- ২০১৮ ২.বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম ছায়েদুল ইসলাম গ্রন্থ স্মারক- ২০১৯ ৩. আওয়ার শেরপুর ডট কম সম্মাননা স্মারক- ২০১৯ গুলোও আছে । সাংবাদিকতা করছেন- ১. সাপ্তাহিক প্রিয়ভাষী পত্রিকা ২. দৈনিক স্বাধীন দেশ ৩. সাপ্তাহিক দশকাহনিয়া ।
তার এলাকায় কবি তিটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে ১. কবি মহিউদ্দিন মডেল স্কুল ( ২০০৬) ২. দীপ্তি ফার্মেসী ( ২০১১) ৩.মৌলভী জোবায়েদ উল্লাহ ফাউন্ডেশন( ২০১৮)
কর্ম জীবনে কবি মহিউদ্দিন বিন্ জুবায়েদ শিক্ষকতা করেছেন ১. নবারুণ পাবলিক স্কুলে ( ২০০৯- ২০১০), ২. কৃষ্ণপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসায় ( ২০১১- ২০১৮) ৩. ২০১৯ সাল থেকে কলসপাড় নঈমী দাখিল মাদরাসা নালিতাবাড়ি, শেরপুর কর্মরত আছেন । শিক্ষা – বি. এ( অনার্স),এম. এম( ফার্স্ট ক্লাস), ডি. ইউ. এম. এস, (ঢাকা), ফার্মাসিস্ট। আমরা কবির দীর্ঘজীবন কামনা করছি । আশা করছি তিনি আমাদের জন্য আরো পুস্তক রচনা করে সাহিত্য বান্ডারকে সমৃদ্ধ করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com