বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৩:২৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রংপুর বিভাগের নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান- ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ রংপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন প্রার্থী আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা মর্যাদার লড়াই জাতীয় পার্টির বিরামপুর পুলিশ বক্স ও বিট পুলিশিং কার্যালয়ের উদ্বোধন নদীর ভাঙন প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম  দেখার কেউ নেই “স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তী পুরস্কার ২০২৩” পেল প্রাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট রংপুরে যুবদল নেতা নয়নের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রংপুর নগরীতে  বাড়িতে হামলা সরকারি জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ  বিরামপুরে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহে মা দিবস অনুষ্ঠিত

করোনায় ব্যস্ততা নেই প্রতিমা শিল্পীদের

রিপোটারের নাম
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫৩১ বার পঠিত
মোঃ আসাদুজ্জামান  রিপন,  পাঁচবিবি (জয়পুরহাট ) প্রতিনিধি।- সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজার প্রতিমা তৈরিতে এ বছর জয়পুরহাট জেলার প্রতিমা শিল্পীদের নেই তেমন ব্যস্ততা। প্রতি বছর এই সময়ে প্রতিমা শিল্পীরা ভীষণ ব্যস্ত থাকলেও এ বছর করোনা মহামারির কারণে শিল্পীদের হাতে খুব বেশি প্রতিমা তৈরির অর্ডার নেই।
সরেজমিনে মহীপুর কলেজ মোড়, বেতগাড়ী, গোপালপুর,  পাঁচবিবি তুড়িপাড়া বারোয়ারী সার্বজনীন দুর্গা মন্দির, চাউল পট্টি  ও পানাতাপট্টি, পৌর শশ্মান মন্দির গিয়ে দেখা যায় প্রতিমা তৈরিতে তেমন কোন ব্যস্ততা নেই শিল্পীদের মাঝে। এবার শিল্পীরা প্রতিমা তৈরি করছেন ছোট আকারে। অনেকেই এবার ঘট ও ছোট আকৃতির প্রতিমায় করবেন দুর্গা পূজা।
প্রতিমা শিল্প রঞ্জিত  হতাসার সুর নিয়ে বলেন, এ বছর করোনার কারণে অনেকে ছোট পরিসরে পূজা করছেন। তেমন ভালো দাম পাচ্ছি না আমরা। সারা বছরের আয় এই দুর্গা পূজার প্রতিমা তৈরি করে হয়ে থাকে। এ বছর তেমন অর্ডার পাচ্ছি না। দুই একটা অর্ডার হলেও তেমন ভালো মজুরি পাচ্ছি না। রং-তুলি ও সাজসজ্জার দাম বেশি হওয়ায় প্রতিমা বানানোর মজুরি কম পাওয়ায় চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে প্রতিমা লিল্পীদের মধ্যে।
শিল্পী রন্জিত ও তার স্ত্রী হিলিনিউজ ২৪কে বলেন, প্রতি বছর এই সময় দুর্গা প্রতিমার অর্ডার একটু বেশি থাকে। এ বছর আমি তিনিটি দুর্গা প্রতিমা তৈরি করছি, তাও আবার ছোট আকৃতির। প্রতি বছর ৩-৪ লাখ টাকা আয় হয় আমাদের সেখানে এ বছর করোনা মহামারির কারণে ১ লাখ টাকাও আয় হবে না। এ বছর ১০ হাজার টাকা থেকে ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত প্রতিমা তৈরি করছি।
পাঁচবিবি উপজেলা  পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ভরত গোয়ালা  হিলিনিউজ২৪কে বলেন, প্রতিটা পূজা মন্ডপে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সবাইকে মাস্ক পরিধান করে পূজায় অংশ নিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া থাকছে না কোন উৎসব আমেজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
জেলা প্রলিশ সুপার মোঃ শরিফুল ইসলাম হিলিনিউজ২৪কে বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের সব থেকে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান দুর্গা পূজা। তবে করোনা মহামারির কারণে অল্পসংখক পুলিশের পাশাপাশি থাকবে আনছার ও গ্রাম পুলিশের সেচ্ছাসেবক সদস্যরা। তাদের খণ্ডকালীন নিয়োগ দেওয়া হবে। আশা করি, কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবে না।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2022 বজ্রকথা।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Hostitbd.Com